সব খবর সবার আগে।

এপার বাংলাতেও নিরাপদ নন হিন্দু দেবদেবীরা, নদিয়ায় ভাঙা হল লক্ষ্মী প্রতিমার মূর্তি, ক্ষোভ জাহির এলাকাবাসীদের

বাংলাদেশে এখনও হিংসার আগুন জ্বলছে। দুর্গাপুজোর অষ্টমীর দিন দুর্গামণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙা থেকে শুরু করে সংখ্যালঘু হিন্দুদের বাড়িঘর জ্বালানো, এই ঘটনায় শুধু ওপার বাংলাই নয়, এপার বাংলাতেও ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। দুই বাংলার নানান তারকা, বুদ্ধিজীবীরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

তবে হিন্দু দেবদেবী যে শুধু বাংলাদেশেই ভাঙা হয়েছে তা নয়, এই রাজ্যেও নিরাপদ নন হিন্দু দেবদেবীরা। নদিয়ার শান্তিপুরের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত ভেড়িপাড়া এলাকায় গতকাল, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যেবেলা ভাঙা হল লক্ষ্মী প্রতিমার মূর্তি। এই ঘটনায় গোটা এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

গ্রামবাসীদের কথা অনুযায়ী, ওই স্থানে গত তিন বছর ধরে দুর্গাপুজো করে আসছেন তারা। দুর্গাপুজো সম্পন্ন হওয়ার পর ওই স্থানে হয় লক্ষ্মী পুজো। গতকাল সন্ধ্যেবেলা যখন সকলেই বাড়ির কাজে ব্যস্ত, সেই সময় রাস্তার পাশের মণ্ডপে ওই লক্ষ্মী প্রতিমা ভাঙচুর করে দুষ্কৃতীরা।

শুধু তাই-ই নয়, এলাকাবাসীদের অভিযোগ প্রতিমার পাশে থাকা ধুনুচি, প্রদীপ, লক্ষ্মীর বাহন পেঁচার মূর্তি সমস্ত কিছু পাশের জঙ্গলে ফেলে দেওয়া হয়েছে। কিছুক্ষণ পরেই গ্রামবাসীরা এই বিষয়টি জানতে পারেন। শোকে এবং ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন তারা।

খবর দেওয়া হয় শান্তিপুর থানার পুলিশকে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন। ভাঙা ওই মূর্তিকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এলাকাবাসীদের দাবী, সংখ্যালঘুরাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

তাদের দাবী, নানান জায়গায় হিন্দু ধর্মকে বিপন্ন করার চক্রান্ত চলছে। এই কারণেই এমন ঘৃণ্য ঘটনা ঘটানো হয়েছে। অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবী করেছে এলাকার বাসিন্দারা। শান্তিপুর থানার পুলিশ এলাকাবাসীদের আশ্বস্ত করেছেন যে দ্রুতই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।

You might also like
Comments
Loading...