রাজ্য

এনটিএ-কে চিঠি, নেট পরীক্ষার দিন বাতিলের আর্জি পার্থ’র

কিছুদিন আগেই দেশজুড়ে শোরগোল পড়ে যায় কেন্দ্রীয় জয়েন্ট ও নিট পরীক্ষা নিয়ে। একরকম নিজের জেদের ওপরে দাঁড়িয়েই এই দুই পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যার জেরে বিরোধী দলের তোপের মুখেও পড়তে হয় তাকে। বিরোধী রাজনৈতিক দলের কোনও আর্জি মেনে নেয়নি দেশের শীর্ষ আদালতও। এইবারও নেট পরীক্ষার ক্ষেত্রেও একই দশা হতে চলেছে।

জানা গিয়েছে, ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি বা এনটিএ দেশব্যাপী নেট পরীক্ষা নিতে চলেছে এবং পরীক্ষা শেষ হবে ২৩শে অক্টোবর। সেই সময়ই শুরু হবে বাঙালীর সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপুজো। কিন্তু সেসব দিক বিবেচনা না করেই পরীক্ষার এমন দিন ফেলে দেওয়ায় কার্যত অসন্তুষ্ট রাজ্য সরকার। এই প্রসঙ্গ নিয়ে এনটিএ-কে চিঠি পাঠিয়ে পরীক্ষার দিন বদল করতে বলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

নেট পরীক্ষা শুরু হতে চলেছে চলতি বছরের পয়লা অক্টোবর এবং শেষ হবে ২৩শে অক্টোবর। ২১শে অক্টোবর, ২২শে অক্টোবর, ও ২৩শে অক্টোবর পরীক্ষা রয়েছে। এদিকে ওই তিনদিন পড়েছে দুর্গাপুজোর পঞ্চমী, ষষ্ঠী ও সপ্তমী। ফলত, এই নিয়ে সরব হয়েছে তৃণমূল সরকার। রাজ্যসভায় এই নিয়ে নোটিস জমা দেওয়া হয়, যাতে বলা হয়েছে, “দুর্গাপুজো বাংলার অন্যতম প্রধান উৎসব। এই পুজোকে আন্তর্জাতিক পুজো বললেও ভুল হবে না। এই সময় প্রতিটা মানুষ আনন্দে মেতে থাকে। পুজোর সময় রাস্তায় যানবাহন বেশি থাকলেও মানুষের ঢলও থাকে বেশি। ফলে পরীক্ষার্থীরা সময়মতো পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছানোর সময় সমস্যায় পড়তে পারে। তাই এই সময় পরীক্ষা স্থগিত রাখাই বাঞ্ছনীয়। দুর্গাপুজোর পরিবর্তে অন্য কোনওদিন পরীক্ষা নেওয়া হোক।” পার্থ চট্টোপাধ্যায় এনটিএ-কে চিঠি দিয়ে জানান যে পুজোর মরশুমে পরীক্ষা হলে পরীক্ষার্থীরা বিশেষ সমস্যায় পড়বে তাই নেট পরীক্ষার দিন অবিলম্বে বাতিল করা হোক।

প্রসঙ্গত, এই বিষয় নিয়ে তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মোদী সরকারকে তোপ দেগেছেন। তিনি টুইট করেন যে দুর্গাপুজোর সময় নেট পরীক্ষা নেওয়ার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অবজ্ঞা ও বাংলার প্রতি তার অশ্রদ্ধা বেড়িয়ে পড়েছে।

Related Articles

Back to top button