রাজ্য

মিড ডে মিলের সয়াবিনে ভর্তি পোকা, জোর করে খেতে বাধ্য করেন প্রধান শিক্ষক, কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

রাজ্যের নানান সরকারি স্কুলে মিড ডে মিলে নিম্নমানের খাবার দেওয়ার অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এর আগেও একাধিকবার দেখা গিয়েছে যে মিড ডে খিচুড়িতে কখনও মিলছে কেঁচো, মরা সাপ, তো কখনও আবার খাবারে দেখা গিয়েছে পোকা। এবারও তেমনই এক অভিযোগ উঠল মিড ডে মিলের খাবার নিয়ে।

এবার মিড ডে মিলের সয়াবিনের তরকারিতে মিলল ভর্তি পোকা। এই নিয়ে প্রবল ক্ষোভ প্রকাশ করেন অভিভাবকরা। পড়ুয়াদের এমন খাবার কেন দেওয়া হচ্ছে, তা নিয়ে স্কুল চত্বরে বিক্ষোভ দেখান তারা। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার কুলপির দক্ষিণ রাজারামপুর অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

এই ঘটনায় অভিভাবকরা স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। অন্যদিকে, পড়ুয়াদের অভিযোগ করে যে স্কুলের প্রধান শিক্ষক সোমনাথ হালদার জোর করে তাদের ওই নিম্নমানের খাবার খেতে বাধ্য করেন।

অভিভাবকরা জানান, গত শনিবার থেকে ছোটো ছোটো পড়ুয়াদের ভাতের সঙ্গে এই ধরনের নিম্নমানের খাবার দেওয়া হচ্ছে। পোকা ভর্তি সোয়াবিনের তরকারি দেওয়া হচ্ছে বলে দাবী করেছেন অভিভাবকরা।

এদিকে, মিড ডে মিলের দায়িত্বপ্রাপ্ত স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা এই ধরণের নিম্নমানের খাবার দেওয়া নিয়ে জানান যে প্রধান শিক্ষককে প্রত্যেক মাসে ২০০০ টাকা করে কাটমানি দিতে হয়। এই কথা শুনে আরও ক্ষুব্ধ হন অভিভাবকরা। প্রধান শিক্ষকের শাস্তির দাবী তোলেন তারা।

তড়িঘড়ি স্কুলে পৌঁছয় পুলিশ। তবে পুলিশ ও অভিভাবকদের মধ্যে ধ্বস্তাধস্তি শুরু হয়। কোনও মতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। স্কুল থেকে প্রধান শিক্ষককে কোনও রকমে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়।

Related Articles

Back to top button