রাজ্য

মাধ্যমিকের খাতাতেও ‘পুষ্পা রাজের ছোঁয়া’! ‘আপুন লিখেগা নেহি’ লিখে উত্তরপত্র জমা দিল পরীক্ষার্থী, অদ্ভুত পরিস্থিতির মুখে শিক্ষক

‘পুষ্পা রাজ, আপুন ঝুকেগা নেহি’, অল্লু অর্জুনের মুখে এই সংলাপ যেন নানান মহলে এক সাড়া ফেলে দিয়েছিল। এখনও পুষ্পা জ্বর কাটে নি অনেকেরই। এখনও এই সংলাপ নিয়ে নানান ভিডিও চোখে পড়ে। কিন্তু তা বলে মাধ্যমিকের উত্তরপত্রতেও পুষ্পা রাজ? এত কেমন কথা?

এবছরের মাধ্যমিকের উত্তরপত্রের মূল্যায়ন করতে গিয়ে নানান অদ্ভুত পরিস্থিতির মুখে পড়ছেন পরীক্ষকরা। কেউ কেউ সাদা খাতাই জমা করে দিয়েছে। এরই মধ্যে একজন লিখে এসেছে পুষ্পারাজের নাম। উত্তরপত্রে সে পরিষ্কার লিখে দিয়েছে যে সেই কিছুই লিখতে চায় না। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি এখন ভীষণ ভাইরাল। তবে খবর ২৪x৭ এই ছবির সত্যতা যাচাই করে নি।

মাধ্যমিকের উত্তরপত্রে কনপ উত্তরই লেখেনি এই পরীক্ষার্থী। এই কারণে ‘পুষ্পা’ ছবির অল্লু অর্জুনের সংলাপই লিখে দিয়েছে সে। লিখেছে, ‘পুষ্পা, পুষ্পারাজ, আপুন লিখেগা নেহি”। এই কীর্তি দেখে আপাতদৃষ্টিতে হাসি পেলেও, এর নেপথ্যে যে করুণ সত্যি রয়েছে, তা বেশ হতাশাজনক।

করোনা কাল কাটিয়ে দু’বছর পর এবছর মাধ্যমিক পরীক্ষা হয়েছে। কীভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে তা নিয়ে গাইডলাইন দিয়েছিল বোর্ড। সূত্রের খবর অনুযায়ী, উত্তরপত্রের মূল্যায়নে গাফিলতি হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষককে সমস্যায় পড়তে হবে। ইতিমধ্যেই ২৮শে এপ্রিলের মধ্যে উত্তরপত্র জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মনে করা হচ্ছে যে হয়তো মে মাসের মধ্যেই মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশ হবে। এই পরিস্থিতিতে বেশ জোরকদমে খাতা দেখা চলছে। আর সেই খাতা দেখতে গিয়েই নানান অদ্ভুত সব অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হচ্ছেন পরীক্ষকরা।

পরীক্ষকরা এমন অনেক খাতাই পেয়েছে, যাতে কিছুই লেখা নেই, পুরোই সাদা। কেউ কেউ আবার প্রশ্নপত্রই টুকে দিয়েছে খাতায়। দু’বছর ধরে করোনা পরিস্থিতির কারণে বন্ধ ছিল স্কুল। অনলাইনে পড়াশোনা চালু থাকলেও, পড়াশোনা থেকে বিমুখ হয়েছে অনেক পড়ুয়ারাই। এর জেরেই পরীক্ষায় এই অবস্থা।

Related Articles

Back to top button