রাজ্য

চার বছর নয়, অগ্নিবীরদের চাকরি ৬০ বছর পর্যন্ত করতে হবে কেন্দ্রকে’, অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়ে সরব হয়ে অদ্ভুত হাস্যকর মন্তব্য করলেন মমতা

কেন্দ্রের অগ্নিপথ (Agnipath) প্রকল্প নিয়ে গোটা দেশে নানান বিক্ষোভ, প্রতিবাদ চলছে। এই নিয়ে নানান প্রান্তে নানান হিংসার ঘটনাও ঘটেছে। এর আগেও এই প্রকল্প নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বিজেপিকে হেয় করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এবার বর্ধমানের এক সভা থেকে ফের একবার অগ্নিপথ নিয়ে সরব হলেন মমতা। তাঁর দাবী, চার বছরের জন্য নয়, অগ্নিবীরদের (Agniveer) জন্য চাকরি ৬০ বছর পর্যন্ত করতে হবে কেন্দ্র সরকারকে।

এসিন সভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি এখন কর্মসংস্থানে জোর দিয়েছি। ওটাই আমার পাখির চোখ”। এরপরই মমতা বিজেপিকে খোঁচা দিয়ে বলেন, “আর ওদের দেখুন, চার বছরের চাকরি দিচ্ছে। তারপর কী? ললিপপ চুষবে? চার বছরের চাকরি দিয়ে সারাজীবন চলবে তো”? মমতার কথায়, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের জন্যই এই অগ্নিপথ প্রকল্প সামনে এসে চার বছরের জন্য চাকরির টোপ দিচ্ছে বিজেপি সরকার।

মমতা অভিযোগ করে বলেন, “ভোটের আগে উজ্বলা প্রকল্পে কয়েকজনকে গ্যাস দিয়েছিল। ভোটের পর থেকে বিজেপি সাংসদের চেহারা দেখতে পেয়েছেন? আমার দলের লোক হলে চড় মারতাম। ওরা জানে, অন্যায় করলে দিদি মারতেও পারে। কিন্তু বিজেপির লোক ভুলভাল বললেও কেউ কিছু বলে না”।

অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়ে সরব হয়ে মমতা বলেন, “প্রশিক্ষণ নিয়ে ৪ বছরের চাকরি। বাকি জীবন কীভাবে চলবে? আমরা দাবি জানাচ্ছি, যাতে এই প্রকল্পের মেয়াদ ৪ বছর নয়। ৬০-৬৫ বছর পর্যন্ত তাঁদের চাকরি করতে দিতে হবে। আমি স্কুল, স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে চাকরির মেয়াদ বাড়িয়ে ৬০ থেকে ৬৫ বছর করে দিয়েছি। অগ্নিবীরের চাকরিও ৬০-৬৫ বছর করতে হবে”।

মমতার এহেন মন্তব্য থেকে প্রশ্ন ওঠে যে সাধারণত সেনাবাহিনীতে জওয়ানদের চাকরির মেয়াদ থাকে ৩৫-৩৬ বছর পর্যন্তই। সেনা আধিকারিকদের ক্ষেত্রে সেই বয়সসীমা আলাদ হয়। কিন্তু যুদ্ধের জন্য জওয়ানদের বয়স যে নির্দিষ্ট তা তো অনেকদিন আগে থেকেই চলে আসছে। কিন্তু এই অগ্নিপথ প্রকল্পের কথা ঘোষণা হতেই মমতার এমন মন্তব্যে বেশ হাসির রোল উঠেছে নানা মহলে।

এই অগ্নিপথ প্রকল্প আসলে কী?

সেনাবাহিনীর লোকবল অক্ষুন্ন রেখে আধুনিকীকরণের জন্য কেন্দ্রের তরফে নতুন প্রকল্পের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, যার নাম অগ্নিপথ। এর মাধ্যমে সেনায় অস্থায়ীভাবে চার বছরের জন্য কর্মী নিয়োগ করা হবে। এদের পোশাকি নাম হবে ‘অগ্নিবীর’। ১৭ বছর থেকে ২১ বছর পর্যন্ত বয়সীরা এই প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে চলতি বছরে ভর্তির সময়ে ২৩ বছরের যুবকরাও এই প্রকল্পের অংশ হতে পারবে।

Related Articles

Back to top button