রাজ্য

প্রকল্পে অসাধু চক্র রুখতে উদ্যত মুখ্যমন্ত্রী, ঘোষণা করা হল গ্রিভ্যান্স সেল, টোল-ফ্রি ও ইউনিক নম্বর

প্রকল্প বাস্তবায়িত হওয়ার আগেই অসাধু চক্রের জাল বুনছে অনেকেই। এবার তা আটকাতে কড়া পদক্ষেপ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ, বৃহস্পতিবার এই বিষয়ে নবান্নে বৈঠক করেন তিনি।

জানা গিয়েছে, আগামী ১৬ই আগস্ট থেকে দুয়ারে সরকারের দ্বিতীয় পর্ব শুরু হচ্ছে। আর এবারের দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের জন্য আলাদা কাউন্টার থাকছে বলে জানান মমতা। ফর্ম ফিলাপের জন্যও থাকছে বিশেষ নিয়ম। আর এই নিয়েই জনগণকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলতে পারে কিছু অসাধু ব্যক্তি।

আরও পড়ুন- ত্রিপুরায় গ্রেফতার দেবাংশুর গাড়ির চালক-সহ একাধিক তৃণমূল কর্মী, মামলা দায়ের জামিন অযোগ্য ধারায়

এই অসাধু চক্রকে আটকানোর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এই জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর সচিবালয়ের অধীনে একটি গ্রিভ্যান্স সেল খুলেছেন। প্রকল্প নিয়ে কারও যদি কোনও অভিযোগ থাকে, তাহলে তা এখানে জমা করা যাবে। এর জন্য দুটি টোল ফ্রি নম্বরও দেওয়া হয়েছে। এই নম্বর দুটি হলো – ১০৭০/‌২২১৪-৩৫২৬।

এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী আজ নবান্নে বলেন, “এবার দুয়ারে সরকারে ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের জন্য পৃথক ক্যাম্প থাকছে। সেখান থেকে বিলি হবে ফর্ম। ফর্মে থাকবে ইউনিক নম্বর। সেই নম্বর নথিভুক্ত হবে সরকারের কাছে। আর এই নম্বর ছাড়া ফর্ম ফিলাপ করা যাবে না”।

এই কড়া পদক্ষেপের মাধ্যমে অসাধু চক্র আটকাবার চেষ্টা চলছে। সরকারি প্রকল্পের ফর্ম ফিলাপের জন্য নতুন নিয়মকানুন সম্বন্ধেও জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।‌ এদিন তিনি বলেন, “‌বাইরে থেকে এই ফর্ম কেনা যাবে না। কোনও সংগঠন যাতে এই ফর্ম নিয়ে বাইরে অর্থের বিনিময়ে বিক্রি করতে না পারেন তার জন্যই এই ব্যবস্থা”।‌ অর্থাৎ প্রশাসনের এখানে বেশ কড়া দৃষ্টি রাখবে, তা ভালোভাবেই বোঝা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন- ধর্ষণের প্রতিবাদে বিজেপি মহিলা মোর্চার বিক্ষোভ ভবানী ভবন চত্বরে, পথ অবরোধের অভিযোগে গ্রেফতার অগ্নিমিত্রা পাল

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান যে ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে’র ফর্মেই যে শুধু নম্বর থাকছে, এমনটা নয়। কৃষক বন্ধু–স্বাস্থ্যসাথীর ফর্মেও থাকছে ইউনিক নম্বর। তবে তিনি এও স্পষ্ট করে দেন যে যাঁরা সরকারি চাকরি করেন, পেনশন পান কিংবা ভালো বেসরকারি চাকরি করেন, তাঁরা এই প্রকল্পের আওতায় পড়বেন না। অন্যদিকে, অন্যরা মাসে ৫০০ এবং তপশিলি জাতি-উপজাতি সম্প্রদায়ভুক্ত মহিলারা প্রত্যেক মাসে ১ হাজার টাকা পাবেন বলেও  জানান মুখ্যমন্ত্রী।

Related Articles

Back to top button