রাজ্য

‘সিপিএমের জমানায় তো চিরকুট দিয়ে চাকরি হত’, নিজের মন্ত্রীদের নাম জড়াতেই চাকরিতে নিয়োগ নিয়ে পূর্বের বাম সরকারকে তোপ মমতার

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় রাজ্যের একাধিক মন্ত্রীর নাম জড়িয়েছে। গতকাল, বুধবারই সিবিআই দফতরে হাজিরা দিয়ে এসেছেন রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এই নিয়ে শাসকদলকে আক্রমণ শানাতে বাদ যায়নি কোনও বিরোধী দলই। এবার এমন আবহে আজ, বৃহস্পতিবার ঝাড়গ্রামে দলীয় কর্মীসভায় আগের বাম সরকারকে নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন কর্মীসভা থেকে তিনি বলেন, “৩৪ বছরে সিপিএম আমলে চিরকুট দিয়ে চাকরি পাওয়া যেত। বদলি হত। সিপিএমের ৩৪ বছরে অনেক খোঁজ নিয়েছি। আস্তে আস্তে চ্যাপ্টার ওপেন করব। এতদিন ভদ্রতার খাতিরে কিছু করিনি”।  

তৃণমূল নেতারা এর আগে একাধিকবার বাম আমলে চাকরিতে নিয়োগ নিয়ে নানান অভিযোগ জানিয়ে এসেছেন। আর এবার অভিযোগ তুললেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে, রাজ্যজুড়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে গতকাল, বুধবার সারাদিন শাসকদলকে নানানভাবে আক্রমণ করেছে বাম ছাত্র সংগঠন।

এদিন মিন্টো পার্কে বিক্ষোভ ঘিরে পুলিশের সঙ্গে তুমুল ধস্তাধস্তি হয় বাম ছাত্রনেতাদের। দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত পরেশ অধিকারীর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। সেই নিয়েও রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ কর্মসূচি নিয়েছে সিপিএম। পরেশ অধিকারীর ছবি ও হাতে টর্চ নিয়ে মন্ত্রীকে খুঁজতে রাস্তায় নামে বামনেতারা। আর এরপরই আজ সিপিএমের বিরুদ্ধে পাল্টা তোপ দাগলেন মমতা।

তবে মমতার এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে সিপিএম। দলের নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করছি। আপনি চিরকুট খুঁজে বার করুন। তার আগে উধাও হয়ে যাওয়া মন্ত্রীকে খুঁজে বার করুন। কয়লা পাচারে কারা যুক্ত খুঁজে বার করুন। সিপিএমের বিরুদ্ধে অনেক কমিশন করেছেন, মিথ্যে মামলা করেছেন। করের টাকায় তৈরি কমিশনের রিপোর্ট প্রকাশ করুন আগে”।

প্রসঙ্গত, এসএসসি দুর্নীতির শেষ নেই। একাধিক মামলা চলছে এই নিয়ে। আদালতের নির্দেশে শুরু হয়েছে সিবিআই তদন্ত। এর জেরে রাজনৈতিক চাপানউতোর এখন তুঙ্গে। বিরোধীরা এই নিয়ে বারবার রাজ্যের শাসকদলকে তোপ দেগেছে। আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন চাকরিপ্রার্থীরা। সব মিলিয়ে এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে রাজ্য এখন সরগরম।

Related Articles

Back to top button