রাজ্য

‘নেতাজির মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠানে ঠিক করে আমন্ত্রণ জানায়নি কেন্দ্র’, তৃণমূলের সমাবেশ থেকে বিজেপিকে বেলাগাম তোপ মমতার

আজ, বৃহস্পতিবার দিল্লির ‘কর্তব্য পথ’এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। এর পাশাপাশি এদিন ইন্ডিয়া গেটে (India Gate) নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর গ্রানাইট পাথরের মূর্তিও (Netaji Statue) উন্মোচন করবেন তিনি। এই মূর্তি উন্মোচনের অনুষ্ঠানে রাজ্য সরকারকে যেভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে, তা অপমানজনক, এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

আজ, বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোরে তৃণমূলের সমাবেশ রয়েছে। এই সমাবেশে যোগ দেওয়ার আগে রেড রোডে নেতাজির মূর্তিতে মাল্যদান করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই সমাবেশ থেকে বিজেপিকে একের পর এক মন্তব্যের দ্বারা তোপ দাগেন তিনি। জানান যে নেতাজির মূর্তি উন্মোচনের জন্য কেন্দ্রের এক অধস্তন সচিবকে দিয়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। যা খুব অপমানজনক।

এদিন মমতা বলেন, “দিল্লির অনুষ্ঠানে আমাদের ঠিক করে আমন্ত্রণ পর্যন্ত জানায় নি। আন্ডার সেক্রেটারির নামে একটা চিঠি এসেছে। এটা তো অপমান। অন্তত একজন মন্ত্রীর নামে চিঠি দিতে পারত। আমরা যেন চাকর-বাকর। ওদের আগেই আমি নেতাজির মূর্তিতে মাল্যদান করে গেলাম। দিল্লির অনুষ্ঠান আমি বাংলায় উদ্বোধন করে এলাম”। মুখ্যমন্ত্রী জানান যে কেন্দ্রের সেই চিঠির পালটা চিঠিও রাজ্যের মুখ্যসচিব ইতিমধ্যেই দিয়েছেন।

বলে রাখি, চলতি বছরের পরাক্রম দিবস অর্থাৎ নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকীতে ইন্ডিয়া গেটে নেতাজির হলোগ্রাম মূর্তির উন্মোচন হয়। এরপর ১৫ই আগস্ট নেতাজির গ্রানাইট মূর্তির উন্মোচনের কথা থাকলেও, তা হয়ে ওঠেনি। মাঝে হলোগ্রাম মূর্তিও দেখা যাচ্ছিল না। সেই নিয়ে এদিন মমতা তোপ দেগে বলেন, “ওরা তো নেতাজির মূর্তি ভেঙে দিয়েছে দিল্লিতে”।

এদিকে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসেছেন ভারত সফরে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার অনুমতি পান নি তিনি। কেন্দ্রের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয় যে সীমান্তবর্তী কোনও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করা যাবে না।

এদিন মমতা এও জানান যে শেখ হাসিনার সফর সম্পর্কে বাংলাকে জানানোও হয়নি। এই নিয়ে সরব হয়ে এদিন মমতা বলেন, “বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এখন ভারতে আছেন। কই তাঁর সফর নিয়ে তো আমাদের কিছু বলা হয়নি। আমি এই প্রথম দেখলাম বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এসেছেন, অথচ বাংলা বাদ”।

Related Articles

Back to top button