সব খবর সবার আগে।

মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলের ঐতিহাসিক ডার্বির সেই রক্তাক্ত দিনকেই ‘খেলা হবে দিবস’ হিসেবে বাছলেন মমতা

‘খেলা হবে দিবস’ যে পালন করা হবে, তা আগেই ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার তা কবে পালন করা হবে, সেই তারিখও জানিয়ে দিলেন তিনি। আজ, বুধবার শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকেই তৃণমূল দলনেত্রী ঘোষণা করেন যে ‘খেলা হবে দিবস’ পালিত হবে ১৬ই আগস্ট।

তবে ‘খেলা হবে দিবস’ হিসেবে সেদিনটাকেই বেছে নেওয়ার কী কারন্ন, তা নির্দিষ্ট করে জানাননি মমতা। তবে বাংলার ফুটবল ইতিহাসে সেই দিনের এটি রক্তাক্ত ইতিহাস রয়েছে। ১৯৮০ সালের ১৬ই অগস্ট ইডেন গার্ডেন্সে মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলের ডার্বির দিন পদপিষ্ট হয়ে ১৬ জন দর্শকের মৃত্যু হয়েছিল।

আরও পড়ুন- উপনির্বাচনের জন্য রাজ্যে শুরু প্রস্তুতি, করোনা বিধিনিষেধের সঙ্গে কোনও আপোশ নয়, কড়া নির্দেশ কমিশনের

সেদিন ডার্বি ঘিরে মাঠে যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল, তা ছড়িয়ে পড়ে গ্যালারিতেও। বিশৃঙ্খলার জেরে একাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। এই ঘটনা ফুটবলের ইতিহাসকে একরকম কলঙ্কিত করে রেখেছে। সম্ভবত সেই দিনের জন্যই ১৬ই অগস্ট ‘খেলা হবে দিবস’ পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মমতা, এমনটাই মত সংশ্লিষ্ট মহলের। তবে সেই দিনটিকে ‘জাতীয় ফুটবলপ্রেমী দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়।

আজ, বুধবার মমতা দাবী করেন, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে এই ‘খেলা হবে’ কথাটির উল্লেখযোগ্য গুরুত্ব রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, “খেলা একটা হয়েছে। আবার খেলা হবে। যতদিন বিজেপিকে বিদায় করতে পারছি না, ততদিন রাজ্যে রাজ্যে খেলা হবে। সব জায়গাতেই খেলা হবে”।

এরইমধ্যে শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকেই পেগাসাস ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রকে বেলাগাম আক্রমণ শানান তৃণমূল সুপ্রিমো। তাঁর কথায়, “আমি চিদম্বরমজির সঙ্গে কথা বলতে পারব না, কারণ আমার ফোন ট্যাপ করা হবে। আমার ইচ্ছা করলেও শরদ পাওয়ারের সঙ্গে কথা বলতে পারব না। আমি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে পারব না। শিবসেনার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে পারব না। ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে পারব না। অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে পারব না”।

এদিন মমতা এমনও অভিযোগ করেন, “গরিব মানুষের হাতে টাকা দেওয়ার পরিবর্তে স্পাইগিরির জন্য কোটি-কোটি টাকা খরচ করছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। শুধুমাত্র ‘স্পাইগিরি’ করা হচ্ছে, বিজেপি বিটিং, কিলিং এবং কোনও কাজ না করে বেশি কথা বলছে”।

আরও পড়ুন- ‘দয়া করে দেশকে বাঁচান’, একুশের মঞ্চ থেকে সুপ্রিম কোর্টকে আর্জি জানিয়ে মোদী-শাহ্’কে তুলোধোনা মমতার

এদিনের মঞ্চ থেকে তৃণমূল নেত্রী আরও বলেন, “মনে রাখবেন, পেগাসাসের নাম করে আপনার-আমার-সবার ফোন ট্যাপ করেছে। আমি কখন বাড়িতেও ঘুমাচ্ছেন, সেটাও দেখা যাবে। আপনি কী খাচ্ছেন, সেটাও দেখা যাবে। আপনার ব্রেনটাও স্ক্যান করে নিচ্ছে”।

You might also like
Comments
Loading...