রাজ্য

করোনা পরিস্থিতিতে পরীক্ষা, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার দিন ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক নিয়ে অনেকদিন ধরেই সংশয়ে ছিলেন নানান পরীক্ষার্থীরা। কবে পরীক্ষা হবে, কীভাবে পরীক্ষা হবে, আদৌ পরীক্ষা হবে কী না, সে নিয়ে উঠেছে অনেক প্রশ্ন। এর আগে একাধিকবার পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। বলা হয়, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরীক্ষা হবে।

এবার মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার দিন ঘোষণা করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান করোনার সমস্ত বিধিনিষেধ মেনেই হবে পরীক্ষা। তবে আবশ্যক বিষয়গুলিই থাকবে পরীক্ষাতে। বাকী বিষয়গুলি বিদ্যালয়ের প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। এও জানান যে তিন ঘণ্টার পরিবর্তে দেড় ঘণ্টা পরীক্ষা হবে।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা হবে । পড়ুয়ারা যাতে সর্বভারতীয় ও আন্তর্জাতিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেন, এই কারণেই উচ্চমাধ্যমিক আগে হচ্ছে”।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, “উচ্চমাধ্যমিকে সাড়ে ৮ লক্ষের বেশি পরীক্ষার্থী। এক্ষেত্রেও আবশ্যিক বিষয়গুলির পরীক্ষা নেওয়া হবে। সময় লাগবে ১৬ দিন”।

অন্যদিকে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে মাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, “১২ লক্ষের বেশি পরীক্ষার্থী। আবশ্যিক বিষয় হল ৭টি। সেই বিষয়গুলির উপরেই পরীক্ষা হবে। অতিরিক্ত বিষয় ৩৮ থেকে ৫৮টি। বিদ্যালয়ের নম্বরের ভিত্তিতেই সেগুলির মূল্যায়ন করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজ বিদ্যালয়ে বা নিকটবর্তী বিদ্যালয়ে পরীক্ষা নেওয়া হবে। ৩ ঘণ্টার পরিবর্তে দেড় ঘণ্টার পরীক্ষা। প্রশ্নপত্র তৈরি হয়ে গিয়েছে। তা এখন পাল্টানো সম্ভব নয়। তাই অর্ধেক সংখ্যক প্রশ্নের উত্তর দিলেই হবে। মানে, যদি ১০টা প্রশ্ন থাকে, তাহলে এর জায়গায় পরীক্ষার্থীরা ৫টি প্রশ্নের উত্তর দিতে দেবে”।

এদিন মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ফল ঘোষণা করে মুখ্যমন্ত্রী জানান যে গোটা দেশে এই রাজ্যেই প্রথম পরীক্ষার দিন ঘোষণা করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button