রাজ্য

রাষ্ট্রদ্রোহীদের হাত ধরেই পাহাড়ে ওঠার চেষ্টা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! চায় পে চর্চায় বিস্ফোরক দিলীপ

যতই এগিয়ে আসছে বিধানসভা ভোট ততই বাড়ছে বিরোধী আক্রমণের ঝাঁঝ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) সরকারের বিরুদ্ধে বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের আক্রমনাত্মক মেজাজ প্রায় গোটা বছর‌ই চোখে পড়েছে।

এবার ফের একবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন তিনি। বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে রসিকগঞ্জে চায়ে পে চর্চার কর্মসুচীতে যোগ দিয়ে বললেন “যাঁদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহীতার মামলা তারাই এখন তৃণমুলের নেতা, তাদের হাত ধরে মমতা পাহাড়ে উঠতে চাইছেন”। তার এহেন বক্তব্য ভোটের বাংলায় নতুন যে বিতর্কের সৃষ্টি করবে তা বলাই বাহুল্য।

আজ অর্থাৎ মঙ্গলবার প্রাতঃকালেই বিষ্ণুপুর রসিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে ‘চায়ে পে চর্চা’য় (chai pe charcha) যোগ দেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। আজকের এই কর্মসূচিতে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ, দলীয় নেতা ও কর্মীদের নিয়ে সাধারন মানুষের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

আর সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “রাজ্যের রাজ্যপালের (governor of West Bengal) পাহাড় সফর নিয়ে যাঁরা বিরোধিতা করছেন তাদের পাহাড়ে ওঠার হিম্মত নেই। তাই তাঁরা রাজ্যপালকে নিয়ে বিভিন্ন ভাবে সমালোচনা করছেন। দিলীপ বাবু বলেন, রাজ্যপালের পাহাড় সফর যুক্তি সম্মত। রাজ্যপালের পাহাড়ে যাওয়াতে পাহাড়ের মানুষ সাহস পাবে উৎসাহিত হবে। একজন রাজ্যপাল তার দায়িত্ব কর্তব্যকে বজায় রেখে কাজ করছেন”।

তাৎপর্যপূর্ণভাবে আজ‌ই নবান্নে বিমল গুরুং (Bimal Gurung) ও বিনয় তামাং কে নিয়ে বৈঠকে বসবে পশ্চিমবঙ্গ প্রশাসন। এর পরিপ্রেক্ষিতে দিলীপ বাবু বলেন, “যাঁরা রাষ্ট্রদ্রোহী যাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগ রয়েছে তাদের হাত ধরে মমতা ব্যানার্জী পাহাড়ে উঠতে চাইছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাই করুক পাহাড়ে তৃণমুলের ঝান্ডা উড়বে না”। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাদের সঙ্গে হাত মেলাবেন, পাহাড়ের মানুষ তাদের সহ্য করবে না বলেই দাবি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের।

Related Articles

Back to top button