রাজ্য

‘অনেক বিপজ্জনক বিল আসছে সংসদে, রাজ্যের অধিকার খর্ব হতে চলেছে’, দিল্লিতে গিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন মমতা

‘শীতকালীন অধিবেশনে বিপজ্জনক বিল আসছে’, দিল্লিতে গিয়ে এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায় অধিকাংশ বিলেই রাজ্যের ক্ষমতা খর্ব করা হবে। “সংসদীয় গণতন্ত্র রক্ষা হবে কিনা আমরা আতঙ্কে আছি”। এদিন ফের একবার কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে তোপ দাগলেন তিনি।

সংসদে শুরু হয়েছে শীতকালীন অধিবেশন। এই অধিবেশনে রণকৌশল কী হবে, তা স্থির করতে আজ, বুধবার সাংসদ সৌগত রায়ের বাড়িতে বৈঠক করেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই বৈঠকে দলের প্রায় সমস্ত সাংসদরাই হাজির ছিলেন। এদিন বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন সংসদীয় গণতন্ত্র, যুক্তরাষ্ট্র পরিকাঠামো নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “১৬টি বিল আসছে-বিদ্যুৎ বিল, সমবায় বিল, তথ্য সংরক্ষণ বিল। অনেকগুলি বিপজ্জনক বিল রয়েছে। তাতে এমন অনেকগুলি বিল রয়েছে যাতে রাজ্যের অধিকারে হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। রাজ্যের গণতান্ত্রিক অধিকার, যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোকে খর্ব করার চেষ্টা চলছে। আজকের বৈঠকে এনিয়ে সাংসদদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে”।

তাঁর আরও অভিযোগ, “বিরোধীরা সুর চড়ালেও, প্রতিবাদ করলেও কেন্দ্র গুরুত্ব দেয় না। বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতাকে হাতিয়ার করে কেন্দ্রীয় সরকার জোর করে বিলগুলি পাশ করিয়ে নেয়। কোনও ভোটাভুটি হয় না। সিলেক্ট কমিটি, স্ট্যান্ডিং কমিটির রিপোর্টকে গুরুত্ব দেয় না। তাই আমরা ভয় পাচ্ছি যে সংসদীয় গণতন্ত্রের মর্যাদা ক্ষুণ্ণ হবে”।

জাতীয় রাজনীতিতে কংগ্রেস এবং তৃণমূলের সমীকরণে ফের বদলের ইঙ্গিত। সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের প্রথমদিনই কংগ্রেসের রাজ্যসভার দলনেতা তথা দলের সর্বভারতীয় সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গের ডাকা বৈঠকে উপস্থিত থাকলেন তৃণমূলের প্রতিনিধি।

এবার তাই প্রশ্ন উঠছে যে তাহলে কি ফের কাছাকাছি আসছে কংগ্রেস-তৃণমূল? তৃণমূল সুপ্রিমোর কথাতেও এমনই  ইঙ্গিত মিলেছে। এদিন মমতা বলেন, “যারা বিজেপির ঔদ্ধত্যের বিরুদ্ধে লড়াই করবে, আমাদের সঙ্গে চলবে, তাদের সঙ্গে আমরা আছি”।

Related Articles

Back to top button