রাজ্য

‘অনেকে বলছে আমি সেটিং করতে দিল্লি গেছি, কেন যাব না”, দিল্লি সফরে মোদীর সঙ্গে বৈঠক নিয়ে বিরোধীদের তোপ মমতার

পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে (Partha Chatterjee) ইডি এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার করার পরই দিল্লি সফরে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এই নিয়ে বিরোধীরা বেশ তোপ দাগে তাঁকে। দিল্লি সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) সঙ্গে মমতার বৈঠক প্রসঙ্গে সকলে বলেছিলেন যে সেটিং করতে দিল্লি গিয়েছেন মমতা। এবার এই নিয়ে বিরোধীদের একহাত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

স্বাধীনতা দিবসের আগের দিন অর্থাৎ রবিবার বেহালার ম্যান্টনে এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই এই ‘সেটিং’ প্রসঙ্গে বিরোধীদের উত্তর দেন মমতা। বলেন, “অনেকে বলছে আমি সেটিং করতে দিল্লি গেছি। কেন যাব না? আমার ১০০ দিনের কাজের শ্রমিকরা ৭ মাস টাকা পায় না। এদের জন্য আমায় যেতে হলে হাজার বার যাব।” এরপরই বিরোধীদের খোঁচা, “যারা সেটিং বলছে, তোমাদের কংগ্রেস, সিএম যখন গেল, তখন সেটিং না? সীতারাম গেলে হয় না? কংগ্রেসশাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী গেলে সেটিং হয় না? বিজেপির কাছে ভিক্ষা চাইতে আমি যাই না। নীতি আয়োগের মিটিংয়ে যাব না”?

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে গ্রেফতার হয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এরপরই মমতার দিল্লি সফরকে ঘিরে খোঁচা দেন বিজেপির সুকান্ত মজুমদার থেকে শুরু করে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী, বামনেতা সুজন চক্রবর্তী সকলেই। তাদের দাবী ছিল যে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাত থেকে বাঁচতেই দিল্লিতে মোদীর শরণাপন্ন হয়েছেন মমতা। থবে এবার এই দাবীর পাল্টা দিয়ে মমতা বলেন যে রাজ্যের দরকারে তিনি বারবার দিল্লি যাবেন।

এদিনের এই সভায় মোদী সরকারেও তোপ দাগতে ছাড়েন নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি অতিসক্রিয়তার সঙ্গে যেভাবে একের পর এক তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধেই পদক্ষেপ করছে, তা নিয়ে কটাক্ষ করেন তিনি। মমতার কথায়, অন্যায় করলে তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। কিন্তু বিজেপি, সিপিএম, কংগ্রেসকে ছেড়ে একপেশেভাবে তৃণমূল নেতাদেরই শুধু কেন অপদস্ত করা হচ্ছে।

মমতা এদিন প্রশ্ন তোলেন, “সীতারামকে কী নোটিশ পাঠানো হয়েছে? প্যান কার্ড ছাড়া ১৭ লক্ষ টাকা জমা করেছিলেন তিনি। সিপিএমের আমলেই সারদা কাণ্ড হয়েছিল। সুজন চক্রবর্তী ছিলেন তাদের নেতা। ক’টা নোটিশ পাঠানো হয়েছে”? মমতার দাবী, তৃণমূলের সাফল্যে ভয় পেয়ে বিরোধীদের মুখ বন্ধ করতে বিজেপি সরকার এমন আচরণ করছে। মমতা এও বলেন যে বিজেপি সরকার রাজনৈতিক স্বাধীনতার পরিপন্থী।

Related Articles

Back to top button