রাজ্য

‘গণ উৎসবে গণতন্ত্রের জয়, সিপিএমের নোপাত্তা, বিজেপি ভোকাট্টা’, বিরোধীদের বিঁধিয়ে কটাক্ষ মমতার

কলকাতা পুরনিগম যে ফের তৃণমূলের দখলেই থাকছে, তা বেশ স্পষ্ট। এদিন তৃণমূলের বিপুল জয়ের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, “গণ উৎসবে গণতন্ত্রের জয়”। এর পাশাপাশি বিজেপি-সহ নানান বিরোধী দলকে কটাক্ষ শানাতেও কসুর করেন নি তিনি।

ভোটগণনা অনুযায়ী, ১৩৩-১৩৪টি ওয়ার্ডে জিততে চলেছে তৃণমূল। এই পরিস্থিতিতে বেলার দিকে মমতা বলেন, “যেভাবে মানুষ আমাদের সমর্থন করেছেন, তাতে সকল মা-মাটি-মানুষ, ভাইবোনকে প্রণাম, অভিনন্দন জানাই। এটা গণতন্ত্রের জয়। গণ উত্‍সবে গণতন্ত্রের জয়। উত্‍সবের মতো ভোট হয়েছে”।

বিধানসভা নির্বাচনের পর যে কলকাতা পুরনিগমের ভোটেও তৃণমূলেরই আধিপত্য হবে, তা বেশ স্পষ্টই ছিল। তবে ঠিক কতগুলি ওয়ার্ড তৃণমূলের দখলে থাকবে, তা  নিয়ে ছিল প্রশ্ন। আপাতত পাওয়া খবর অনুযায়ী, তৃণমূল প্রায় ৯২ শতাংশ ওয়ার্ডেই জিতে গিয়েছে বা এগিয়ে রয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে মমতা বলেন, “মানুষের জন্য আরও বেশি কাজ করবে তৃণমূল। মানুষ যত আমাদের সমর্থন করবেন, তত নতমস্তকে আমরা মানুষের জন্য কাজ করব। কলকাতা আমাদের গর্ব, বাংলা আমাদের গর্ব। কলকাতা এবং বাংলা পুরো দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে”। এরইসঙ্গে মমতা জানান, কলকাতা পুরনিগমের জয় জাতীয় রাজনীতির ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ভোটগণনা যা চলছে, এর থেকে বোঝা যাচ্ছে যে বিধানসভার পর কলকাতা পুরনির্বাচনে জমি আরও হারিয়েছে বিজেপি। নানান আসনেই তারা দ্বিতীয় থেকে তৃতীয়তে নেমে গিয়েছে। অনেক আসনেই বামেরা দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

তবে সার্বিকভাবে তৃণমূলের সঙ্গে বিরোধীদের ভোটের অনেক ফারাক রয়েছে। এই নিয়েই কটাক্ষ করে মমতা বলেন যে বিজেপি মানুষের রায়ে ‘ভোকাট্টা’ হয়ে গিয়েছে। সিপিএমের ‘নোপাত্তা’ আর কংগ্রেস তো ‘স্যান্ডুইচ’। এরই সঙ্গে মমতার সংযোজন, “আমরা বাংলার মেয়ে, আমরা মাটি থেকেই কাজ করি”।

Related Articles

Back to top button