সব খবর সবার আগে।

করোনা মোকাবিলায় অগ্রাধিকার, অশান্তি ছড়ালে কড়া পদক্ষেপ, তৃতীয়বার শপথগ্রহণে মমতার অঙ্গীকার

নজির গড়েছে তাঁর দল। নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ফের বাংলায় ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল। এবার বাংলা এবং ভারতের ইতিহাসে নজির গড়ে তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনা পরিস্থিতির জন্য এবার একেবারেই সাদামাটাভাবেই রাজভবনে পৌঁছন তিনি। অনাড়ম্বর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে ১০টা ৪৫ মিনিটে শপথ নেন তিনি। সামাজিক দূরত্ব এবং জমায়েতের বিষয়টি মাথায় রেখে হাতেগোনা কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল এই অনুষ্ঠানে।

আরও পড়ুন- ‘২রা মে-র পর থেকে পুলিশ নিজের কাজে গাফিলতি করছে’, রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনায় তীব্র তোপ বিজেপির 

এদিন মমতার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রশান্ত কিশোর, ফিরহাদ হাকিম, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সি, বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, অরূপ বিশ্বাস, দেব, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, প্রদীপ ভট্টাচার্য, শতাব্দী রায়রা। আসেননি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

এদিন বাংলায় শপথবাক্য পাঠ করেন মমতা। শপথ নেওয়ার সময় তিনি স্পষ্টভাবেই বলেন যে দলের তরফে প্রথম অগ্রাধিকার করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করা। তিনি এ নিয়ে নবান্নে আলোচনা করবেন বলে জানান। এছাড়াও, এদিন দলের উদ্দেশ্যে শান্তির বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, তিনি অশান্তি পছন্দ করেন না। আইনশৃঙ্খলা অমান্য করে অশান্তি ছড়ালে তিনি যে কঠোর পদক্ষেপ নেবে, তা-ও স্পষ্ট ভাষাতেই জানান তিনি।

আরও পড়ুন- রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা, উদ্বেগ প্রকাশ করে জগদীপ ধনখড়কে ফোন প্রধানমন্ত্রীর, টুইটারে ঝড় রাজ্যপালের

এদিন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় যেন বাংলায় তাঁকে ‘ছোটো বোন’ বলে অভিহিত করলেন। এদিন অবশ্য তোপ দাগতেও ছাড়েননি তিনি। মমতার পাশে দাঁড়িয়ে ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে কটাক্ষ করেন রাজ্যপাল।

You might also like
Comments
Loading...