রাজ্য

তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব! ‘মমতা-অভিষেকের মতো আমারও জনপ্রিয়তা রয়েছে’, পিসি-ভাইপোকে চ্যালেঞ্জের ভঙ্গিতে বিস্ফোরক মন্তব্য মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লার

পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল। এরই মাঝে মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরীকে নিয়ে দলের একাংশের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বিধায়কের অনুপস্থিতিতেই তৃণমূল ব্লক সভাপতির নাম ঘোষণা করে দেওয়ায় বেশ চটেছেন মন্ত্রী। আর এহেন পরিস্থিতিতে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম করেই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন সিদ্দিকুল্লা।

জানা গিয়েছে, মন্তেশ্বর ব্লকে আহম্মদ হোসেন শেখকে ব্লক সভাপতি করার প্রস্তাব দেন সিদ্দিকুল্লা। তবে আজিজুল হককে দল ফের একবার ব্লক সভাপতি করা হয়। এতেই অসন্তুষ্ট হন সিদ্দিকুল্লা। আবার পূর্ব বর্ধমানে জেলা স্তরে রদবদল নিয়ে জেলার তৃণমূল নেতা-কর্মীদের একাংশ অসন্তুষ্ট হয়েছে। তারা অভিযোগ জানায় যে সিদ্দিকুল্লার নির্দেশেই এই রদবদল হয়েছে। এই সব মিলিয়ে এক জটিল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে মমতা-অভিষেকের সঙ্গে নিজের তুলনা টানলেন সিদ্দিকুল্লা।

বর্তমানে সিদ্দিকুল্লা মক্কায় রয়েছেন। এরই মাঝে তাঁর এক অডিও ক্লিপ সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে। এই অডিও ক্লিপের সত্যতা যচাই করেনি খবর ২৪x৭। এতে সিদ্দিকুল্লার মতো গলায় এক ব্যক্তিকে বলতে শোনা গিয়েছে, “সারা রাজ্যে আমাদের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যেমন জনপ্রিয়তা, পশ্চিমবাংলায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একজন নতুন, উঠতি যুবক হিসেবে কাজ করছেন, আমি তাঁর কাজের প্রশংসা করছি। কিন্তু সিদ্দিকুল্লা চৌধুরীর ক্রেজও আছে সারা পশ্চিমবঙ্গে”।

সিদিকুল্লা আরও বলেন, “আমার বিধানসভা কেন্দ্রে, আমি যাকে ব্লক সভাপতি করতে বলব, তাকে না করা হলে সেটা সমীচিন নয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি আমার আশা, উনি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবেন। প্রয়োজনে সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী অন্য পথে হাঁটতে পারে। সব রাস্তা খোলা আছে”।

তিনি আরও বলেন, “মন্তেশ্বরের আমি আহমেদ হোসেন শেখের নাম দিয়েছিলাম। তবে তাঁকে বাদ দিয়ে আজিজুল রহমানকে সভাপতি করা হয়েছে। আমার সঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈঠক হয়েছিল, সেই বৈঠকে আমি যা বলার বলেছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমি আবার অনুরোধ জানাব। পঞ্চায়েতে জিততে হলে আহমেদ হোসেন ছাড়া মন্তেশ্বরে ভালো ফল পাওয়া যাবে না। বিজেপি এবং সিপিএম গদ্দারি করে তৃণমূল কংগ্রেসকে হারাবে”।

Related Articles

Back to top button