সব খবর সবার আগে।

চলল শুভেন্দু ম্যাজিক, বিজেপিতে যোগ দিলেন শতাধিক তৃণমূল নেতা-কর্মী

একুশের নির্বাচনের অনেক আগেই নিজে দলবদল করেছিলেন তিনি। শাসকদলের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ এনে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে অমিত শাহ্‌’র সভায় গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নেন শুভেন্দু অধিকারী।

এরপর ভোটে বিজেপিকে জেতানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছেন শুভেন্দু। তৃণমূলনেত্রীর বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ আনা থেকে শুরু করে তাঁকে কটাক্ষ, আক্রমণ সবই চলেছে। তবে দল না জিতলেও নিজের কেন্দ্র নন্দীগ্রাম থেকে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে জিত ছিনিয়ে আনেন শুভেন্দু।

বিধানসভায় বিরোধী দলনেতাও হন তিনি। এবার তাঁর ম্যাজিক চলতে শুরু করেছে। নন্দীগ্রামে তৃণমূল পরিচালিত আমদাবাদ ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ-প্রধান ও শতাধিক তৃণমূল কর্মী-সমর্থক যোগ দিলেন বিজেপিতে। শুভেন্দুর নেতৃত্বতেই যে এমনটা সম্ভব হয়েছে, তা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন- ‘একুশে জুলাই’ এবার পালন হবে গুজরাতেও, মোদীর রাজ্যে ভার্চুয়াল বক্তৃতা রাখবেন ‘দিদি’

ওই গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ-প্রধানের দাবী, পঞ্চায়েত প্রধান ও তাঁর স্বামীর একনায়কতন্ত্রের জন্যই তিনি ও বাকিরা দলবদল করেছেন। ভোট পরবর্তী হিংসার জেরে এই দলবদল, এমন প্রসঙ্গ তুলে তৃণমূলকে কটাক্ষ করে বিজেপি। তবে অন্যদিকে আবার তৃণমূলের দাবী, নিজেদের মুখ বাঁচানোর জন্যই এই নেতা-কর্মীরা দলবদল করলেন।

উল্লেখ্য, দলের ভিতরেও এখন শুভেন্দুর বিপদ কম নয়। সূত্রের খবর অনুযায়ী, অনেকেই শুভেন্দুকে মেনে নিতে পারছেন না। আবার এরই মধ্যে মুকুল রায়কে বিধানসভার পিএসির চেয়ারম্যান করার প্রতিবাদে শুভেন্দুর নেতৃত্বেই আট বিজেপি বিধায়ক নিজেদের বিধানসভার কমিটির চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন।

এই কারণে অনেকেই শুভেন্দুর উপর অসন্তুষ্ট। তাদের দাবী, শুভেন্দুর জন্যই আজ বিধানসভার কমিটিতে বিজেপির কোনও চেয়ারম্যান নেই। এসবের মাঝে শুভেন্দুর নেতৃত্বে যদি শতাধিক তৃণমূল নেতা-কর্মী বিজেপিতে যোগ দেয়, তাহলে দলে শুভেন্দুরই মান বাঁচবে।

You might also like
Comments
Loading...