রাজ্য

‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই মা সারদা, মা সারদাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রূপে জন্মগ্রহণ করেছেন’, নির্মল মাজির মন্তব্যে বিতর্ক রাজনৈতিক মহলে

এমনিতে মাঝে মধ্যেই নানান মন্তব্যের জেরে তিনি খবরের শিরোনামে উঠে আসেন। তাঁকে নিয়ে বিতর্কও কম নয়। আবারও একবার সেই চেনা রূপেই ধরা দিলেন তৃণমূল নেতা নির্মল মাজি (Nirmal Maji)। সম্প্রতি একটি ভিডিও বেশ ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় (social media), যা নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে বেশ চর্চা শুরু হয়েছে। এই ভিডিওতে নির্মল মাজিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Banerjee) মা সারদার (Maa Sarada) সঙ্গে তুলনা করতে শোনা গিয়েছে।

গত রবিবার ‘প্রোগ্রেসিভ ফার্মাসিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের’ বাঁকুড়া জেলা সম্মেলনে যোগ দেন নির্মল মাজি। সেই সভামঞ্চ থেকেই তাঁর এহেন এই মন্তব্যের ভিডিও নেটমাধ্যমে ছড়িয়েছে। আর তারপর থেকেই বিভিন্ন মহলে বিতর্ক শুরু হয়েছে। যদিও এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করেনি খবর ২৪৭।

এদিনের এই সভামঞ্চ থেকে নির্মল মাজিকে বলতে শোনা যায়, “মা সারদা মারা যাওয়ার পূর্বে স্বামী বিবেকানন্দের শিষ্য ও সতীর্থদের কাছে কয়েকটি কথা বলে যান। তিনি বলেন যে, তাঁর মৃত্যু হয়ে গেলেও পরবর্তী জন্মে কালীঘাটের কালীতীর্থে জন্মগ্রহণ করবেন। পরের জন্মে ত্যাগ কর্মের সঙ্গে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হওয়ার কথা বলেন তিনি”।

তিনি আরও বলেন, “সম্প্রতি আমি দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে যাই এবং সকল সংখ্যা তত্ত্ব মিলিয়ে আপনারা বুঝতে পারবেন যে, এই যুগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই হলেন আসলে মা সারাদা। মা সারদাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হয়ে জন্মগ্রহণ করেছেন”।

সম্প্রতি নির্মল মাজিকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে গ্রামীণ হাসপাতালের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর তাঁর ভরসা অগাধ। এদিন সভায় তিনি আরও বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম অষ্টমী-নবমী তিথিতে। এই তিথিতে যার জন্মগ্রহণ হয়, তিনি নবরূপে উন্মোচিত হয়। বর্তমান যুগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই মা সারদা, তিনিই সিস্টার নিবেদিতা”। নির্মল মাজির এমন মন্তব্যে রাজ্য রাজনীতিতে বেশ আলোড়নের সৃষ্টি হয়েছে। নানান বিতর্ক তৈরি হয়েছে এই নিয়ে।

ভিডিও সৌজন্যেঃ আনন্দবাজার পত্রিকা

নির্মল মাজির এমন মন্তব্যে সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী বলেন, “ওঁর আগে এই দলেরই নেতা প্রাক্তন সাংসদ বলেছেন, মা মনসার মতো মা মমতার পুজো হবে ঘরে ঘরে। এখনও উনি সেটা বলতে পারেননি। তবে মস্তিষ্ক বিকৃতি হলে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়”।

অন্যদিকে, রাজ্য বিজেপির প্রধান মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের কথায়, “এমন বক্তব্যের পরে দক্ষিণেশ্বর এলাকায় কান পাতলে শোনা যাবে রামকৃষ্ণদেব গুমরে কাঁদছেন”।

Related Articles

Back to top button