সব খবর সবার আগে।

৬ লাখ পরিযায়ী শ্রমিক ফেরানোর জন্য চাওয়া হয়েছে মাত্র ১৭ টা ট্রেন? সুপ্রিম কোর্টে ভর্ৎসনার মুখে বাংলা

করোনার জেরে নিজের বাড়িতে ফিরতে চাইছেন বাইরে কর্মরত উচ্চবিত্ত থেকে নিম্নবিত্ত সবাই। যেখানে অর্থবান মানুষরা প্লেনে চড়ে বা সম্প্রতি শুরু হওয়া দূরপাল্লার এক্সপ্রেস ট্রেন গুলিতে চেপে নিজের বাড়ি ফিরছেন স্বাভাবিকভাবেই পরিযায়ী শ্রমিকদের পক্ষে তা সম্ভব নয়। তাই পায়ে হেঁটেই কিলোমিটারের পর কিলোমিটার পাড়ি দিয়েছিলেন তারা। তারপর কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের উদ্যোগে স্পেশাল ট্রেন দিয়ে তাদের বাড়ির পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। বিভিন্ন রাজ্য ট্রেন পাঠায় অন্যান্য রাজ্যে এই পরিযায়ী শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনতে।

ট্রেনের সংখ্যা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের আগেই ঝামেলা বেঁধেছিল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি নাকি পশ্চিমবঙ্গের শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনতে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন রাজ্যে ঢোকার অনুমতিও দিচ্ছেন না এবং রাজ্য থেকে পাঠাচ্ছেনও না। পড়ে যদিও রাজ্যে একের পর এক ঢুকতে থাকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন।

এবার আরেকটি ঘটনায় মুখ পুড়ল রাজ্যের। এখনও ছয় লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক ফিরবেন পশ্চিমবঙ্গে। অথচ রাজ্য রেলের কাছ থেকে ট্রেন চেয়েছে মাত্র ১৭টা। এইসংখ্যক ট্রেনে কীভাবে এতজন শ্রমিক ফিরবেন, তা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে প্রশ্নের মুখে পড়ল রাজ্য।

পরিযায়ী শ্রমিকের সমস্যা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে স্বতঃপ্রণোদিত একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয় সম্প্রতি। শুক্রবার ছিল দ্বিতীয় দিনের শুনানি। শুরুতেই সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা জানান, গত ৩ জুন পর্যন্ত দেশে ৪,২২৮ টি ‘শ্রমিক স্পেশাল’ ট্রেন চলেছে। সবথেকে বেশি ১,৬৯৫ টি ট্রেন পেয়েছে উত্তরপ্রদেশ।

তবে এখনও কতজন শ্রমিক দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে রয়েছেন, তা জানতে চান বিচারপতি অশোক ভূষণ, বিচারপতি এস কে কউল এবং বিচারপতি এস আর শাহের ডিভিশন বেঞ্চ। কত রাজ্যের কতগুলি ট্রেন লাগবে, তা জানানোর জন্য ১৫ দিন সময় দেয় শীর্ষ আদালত।

তারপর বিভিন্ন রাজ্যের তরফে সুপ্রিম কোর্টে পরিযায়ী শ্রমিক সংক্রান্ত তথ্য পেশ করা হয়। পশ্চিমবঙ্গের তরফে কৌঁসুলি জানান, রাজ্যে ভিন রাজ্য থেকে শ্রমিকরা আসছেন। আরও ছ’লাখ শ্রমিক এখনও আসবেন।

তখনই বিচারপতি শাহ বিস্ময় প্রকাশ করেন। তিনি প্রশ্ন করেন আপনাদের ছয় লাখ মানুষ আসবেন আর আপনারা রেলের কাছ থেকে মাত্র ১৭টা ট্রেন চেয়েছেন (যে কটি ট্রেন আসার কথা আছে, সেগুলি বাদে ট্রেন সংখ্যা) ?

বিচারপতি ভূষণ বলেন, ‘ওঁদের (শ্রমিকদের) ফিরে আসার সুবিধে করতে হবে।’ গত বুধবার কেন্দ্রের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর তরফে একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, ওইদিন সকাল ন’টা পর্যন্ত ৪১৯৭ টি ‘শ্রমিক স্পেশ্যাল’ ট্রেন চলেছে। যে রাজ্যগুলিতে সবথেকে বেশি ট্রেন গিয়েছে, সেই তালিকায় পঞ্চম স্থানে আছে পশ্চিমবঙ্গ (১৫৬ ট্রেন)। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ওয়েবসাইটের তালিকা অনুযায়ী, আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত রাজ্যে আরও ২৪ টি ‘শ্রমিক স্পেশ্যাল’ (শুক্রবার থেকে ছাড়া ট্রেনের সংখ্যা) ট্রেন ঢুকবে।

You might also like
Leave a Comment