রাজ্য

‘অনুব্রত কী এই জেলেই আসবে’? সতীর্থের গ্রেফতারির খবর পেয়ে প্রেসিডেন্সি জেলে বসে এমনটাই জানতে চাইলেন পার্থ

গতকালই গরু পাচার কাণ্ডে (cattle smuggling case) সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন বীরভূমের জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mandal)। এই নিয়ে এখন গোটা রাজ্য তোলপাড়। অন্যদিকে, রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতির (SSC scam case) জেরে আপাতত রয়েছেন প্রেসিডেন্সি জেলে। গতকাল নিজের সেলেই ঘোরাফেরা করছিলেন তিনি। তখনই অনুব্রতর গ্রেফতারির খবর পান তিনি।

কারারক্ষীদের থেকেই অনুব্রত মণ্ডলের গ্রেফতার হওয়ার খবর পার্থ পেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। এই খবর শোনামাত্রই কারারক্ষীদের পার্থ নাকি জিজ্ঞাসা করেন, “অনুব্রত কী এই জেলেই আসবে”? আপাতত প্রেসিডেন্সি জেলের ‘পহেলা বাইশ’ ওয়ার্ডের ২ নম্বর সেলে রয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

গত ২২শে জুলাই এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতির জেরে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে হানা দেয় ইডি। চলে তল্লাশি। এদিন রাতেই পার্থ-ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় ২১ কোটির বেশি টাকা। পার্থ ও অর্পিতা, দু’জনকেই গ্রেফতার করে ইডি। আপাতত আদালতের নির্দেশে প্রেসিডেন্সি জেলে ঠাঁই হয়েছে পার্থর।

এদিকে, গতকাল, বৃহস্পতিবার বোলপুরে অনুব্রত মণ্ডলের বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই। গরু পাচার মামলায় তাঁকে একাধিকবার তলব করা হলেও হাজিরা দেন নি তিনি। এদিন বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় অনুব্রতকে। গতকাল বিকেলেই আসানসোলের সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে তোলা হয় বীরভূমের দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতাকে। আদালত তাঁকে ১০ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দেয়।

জানা গিয়েছে, গতকাল, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার সময় কলকাতা আসার পথে হুগলির ধনেখালিতে প্রবল যানজটে আটকে পড়ে সিবিআইয়ের গাড়ি। ওই সময়ই সংবাদিকরা অনুব্রতর গ্রেফতারি নিয়ে তাঁকে নানা প্রশ্ন করতে শুরু করেন। সে সব প্রশ্নের কোনও উত্তর না দিয়ে সামনের দিকে একদৃষ্টে তাকিয়ে ছিলেন। কখনও তাঁকে দেখা যায় তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছতে, কখনও জল খেতে আবার কখনও বা গাড়ির সিটে মাথা এলিয়ে শুয়ে থাকতে।

Related Articles

Back to top button