রাজ্য

বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের গায়ে হাত দেওয়ার অভিযোগ রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে, অগ্নিগর্ভ বালুরঘাট

গতকাল ছিল ১০৮টি পুরসভায় নির্বাচন। এদিনের এই নির্বাচনে সন্ত্রাসের অভিযোগ তোলা হয় বিজেপির তরফে। সেই সন্ত্রাসের প্রতিবাদ জানাতেই আজ, সোমবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত বাংলা বনধের ডাক দিয়েছে বিজেপি। এই বনধ সফল করতে রাস্তাতেও নামেন বিজেপি কর্মীরা।

এদিকে এই বনধ যাতে সফল না হয় এর জন্য বদ্ধপরিকর নবান্ন। জেলাশাসকদের কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মুখ্যসচিবের তরফে। জোর করে বনধ করলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

বালুরঘাট বাস স্ট্যান্ডে বসে বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের নেতৃত্বে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। সেখানে এই বিক্ষোভে বাধা দেয় রাজ্য পুলিশ। বিক্ষোভ বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এর জেরে পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তিতে জড়ান বিজেপি কর্মীরা। হয় হাতাহাতিও। সুকান্ত মজুমদারের উপর হাত তুলেছে পুলিশ, এমন অভিযোগও করা হয়েছে।

সুকান্ত মজুমদারের কথায়, “আমরা শান্তিপূর্ণভাবেই বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলাম। আইসি এসে হুড়োহুড়ি করে। বিক্ষোভে বাধা দেয়। লাঠিচার্জ করতে থাকে। তৃণমূলের ক্যাডারে পরিণত হয়েছে আইসি”। এর জেরে বালুরঘাট রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে।

শুধু বালুরঘাটই নয়, শিলিগুড়িতে বনধের পরিবেশ দেখা গিয়েছে। বিধায়ক নিখিলরঞ্জন দে বাস আটকান বলে খবর। এরপরই সেখানে উপস্থিত হয় পুলিশ। বিধায়কের সঙ্গে কথা বলে বাসটিকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

কলকাতায় সেভাবে বনধের প্রভাব দেখা না গেলেও, বেহালায় পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়ান বিজেপি কর্মীরা। অন্যদিকে হাজরা মোড়ে বনধ নিয়ে বিক্ষোভ দেখা যায়।

Related Articles

Back to top button