রাজ্য

এক ঘণ্টা পর খোঁজ মিলল ডোমের, ডোম ‘উধাও’ হয়ে যাওয়ার জেরে থমকে মৃত বিজেপি নেতা অর্জুন চৌরাসিয়ার ময়নাতদন্ত

গতকাল, শুক্রবার আদালত নির্দেশ দেয় কোনও রাজ্য সরকারি হাসপাতালে নয়, বিজেপি নেতা অর্জুন চৌরাসিয়ার ময়নাতদন্ত হবে কমান্ড হাসপাতালে। এই কারণে আজ, শনিবার বিজেপি নেতার মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয় কমান্ড হাসপাতালে। সকাল সাড়ে ৮টায় সেখানে ময়নাতদন্ত শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ডোমকে খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে থমকে যায় ময়নাতদন্ত।

এদিন এক ঘণ্টার বেশি সময় কেটে গেলেও খুঁজে পাওয়া যায় না ডোমকে। পরে অবশ্য পুলিশি তল্লাশিতে খোঁজ মেলে তাঁর। অভিযোগ, কমান্ড হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষীরা ওই ডোম গোপালের কাছে পরিচয়পত্র দেখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি তা দেখাতে না পারায় তাঁকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

জানা গিয়েছে, আজ সকালে নির্ধারিত সময়ের আগেই হাসপাতালে পৌঁছন গোপাল। তাঁর হাতে একটি নীল রঙের খাতা ছিল। সেই খাতাটি দেখিয়ে গোপাল দাবী করেন যে সেই খাতাতে যে নথি রয়েছে, তা ময়নাতদন্তের জন্য খুব জরুরি। তিনি পরিচয়পত্র দেখাতে না পারলেও সেই খাতা দেখিয়ে প্রবেশ করতে চান তিনি। কিন্তু তাঁকে আটকে দেন কমান্ড হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষীরা। এরপরই সেখান থেকে বেরিয়ে যান গোপাল।

এদিকে, কমান্ড হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করতে গিয়ে আর জি কর হাসপাতালের ফরেন্সিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জানান যে গোপালের কাছে যে খাতা রয়েছে, সেটা ছাড়া ময়নাতদন্ত হবে না। এরপরই তল্লাশি শুরু হয় গোপালের। তাঁকে ফোন করা হলেও তাঁর মেয়ে ফোন ধরে। সে জানায় যে বাবা অনেকক্ষণ আগেই বেরিয়ে গিয়েছে। এক ঘণ্টা পর গোপালের খোঁজ পেয়ে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে আসে পুলিশ।

বলে রাখি, এদিন ময়নাতদন্তের সময় উপস্থিত থাকবে আর জি কোর হাসপাতালের ফরেন্সিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, কল্যাণী এইমসের চিকিৎসকরা। এছাড়াও, থাকবেন কমান্ড হাসপাতালের চিকিৎসকরা। ময়নাতদন্তের ভিডিওগ্রাফি করা হবে যাতে পরে যদি কোনও প্রশ্ন ওঠে, তাহলে তা পুনরায় দেখা যায়।

Related Articles

Back to top button