সব খবর সবার আগে।

‘ম্যান অফ দ্য ম্যাচ আমিই’, ভোটে হেরেও জোর গলায় বললেন বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল

আজ, রবিবার ছিল ভবানীপুর-সহ রাজ্যের তিন কেন্দ্রের ভোটের ফলাফল। সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুরেও ভোটের ফলাফল ঘোষণার দিন থাকলেও রাজ্যবাসীর কিন্তু নজর ছিল একমাত্র ভবানীপুরের দিকেই। কারণ এই কেন্দ্রেই তৃণমূলের তরফে প্রার্থী ছিলেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর গদি টিকিয়ে রাখতে গেলে তাঁকে এই কেন্দ্র থেকে জিততেই হত। আর সেরকমই হয়েছে। শেষ পর্যন্ত জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন মমতাই। শুধু জয়ই নয়, নিজের আগের রেকর্ড ভেঙে বিপুল ভোটে ভবানীপুর থেকে উপনির্বাচনে জিতলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৫৮ হাজারেরও বেশি ভোটে জিতেছেন। অন্যদিকে বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল জিতেছেন ২৫ হাজার ভোটে। মমতার গড়ে দাঁড়িয়ে তিনি এই সংখ্যক ভোট যে ছিনিয়ে নিতে পেরেছেন, এর জন্য জন্য জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এছাড়াও ধন্যবাদ জানিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারও।

ভোটের ফলাফল ঘোষণা পর মুখ খুললেন প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে প্রিয়াঙ্কা বলেন, “হয়তো আমরা ম্যাচ হেরেছি, কিন্তু ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ আমি”। এর পাশাপাশি ভবানীপুরে জয়ের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছাও জানান তিনি।  বিজেপি নেত্রী আরও বলেন,  “সংগঠনকে শক্ত করার জন্য বিজেপির আরও পরিশ্রম করা দরকার। ভবানীপুর আমি ছাড়বো না। একইসঙ্গে আমি দিদিকে জয়ের জন্য শুভেচ্ছা এবং আমার প্রণাম জানাই”।

তবে এদিন তৃণমূলকে তোপ দাগতেও ছাড়েন নি প্রিয়াঙ্কা। তাঁর কথায়, “একই সঙ্গে এটাও বলব পরবর্তী ক্ষেত্রে যদি কাউকে ছাপ্পা ভোট দিতে পাঠান দিদি, তাহলে সংগঠনের কাউকে পাঠাবেন না তাদের বাঁচাতে। এতে সংগঠনের ক্ষতি হয়। মানুষ দেখতে পায়”।

এরই সঙ্গে এদিন নিজের লড়াই প্রসঙ্গেও কথা বলেন প্রিয়াঙ্কা। তাঁর কথায়, “কাল পর্যন্ত যে বাচ্চা মেয়েটিকে তিনি চিনতেন না, সেই আজ ২৫ হাজার ভোট পেয়েছে ভবানীপুরে, যাকে মমতা ব্যানার্জির গড় বলা হয়”। তাঁর আরও দাবী, তাঁর মতো একজন বাচ্চা মেয়েকে হারানোর জন্য তৃণমূলকে দলের সমস্ত মন্ত্রী মন্ডল সংগঠন এবং কাউন্সিলরদের রাস্তায় নামিয়ে দিতে হয়েছিল।

You might also like
Comments
Loading...