রাজ্য

মুকুল ইস্তফা দেওয়ায় পিএসি-র চেয়ারম্যান পদে বিজেপিত্যাগী রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী, ফের গেরুয়া শিবিরকে চাপে ফেলল বিধানসভা

কিছুদিন আগেই বিধানসভার পিএসি-র (Public Accounts Committee) চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন মুকুল রায় (Mukul Roy)। সেই ইস্তফা গ্রহণের পরই পিএসি-র নতুন চেয়ারম্যান করা হলে রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণীকে (Krishna Kalyani)। বিধানসভার তরফে এই নামই চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তবে সরকারিভাবে এখনও পর্যন্ত এই ঘোষণা করেন নি বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় (Biman Banerjee)।

পিএসি-র চেয়ারম্যান পদ থেকে মুকুল রায় ইস্তফা দেওয়ার পর থেকে এই পদ নিয়ে তৎপরতা লক্ষ্য করা যায় গেরুয়া শিবিরের মধ্যে। এরই মধ্যে এই পদে বসানো হল বিজেপির টিকিটে জিতে দলের উপর অনাস্থা প্রকাশ করে তৃণমূলে যোগ দেওয়া কৃষ্ণ কল্যাণীকে। এর ফলে যে বিজেপি ফের একবার চাপের মুখে পড়ল, তা বলাই বাহুল্য।

বলে রাখি, একুশের নির্বাচনে রায়গঞ্জ থেকে বিজেপির টিকিটে লড়ে বিধায়ক হন কৃষ্ণ কল্যাণী। তবে দলের নেতাদের সঙ্গে ক্রমেই মতভেদ বাড়তে থাকে তাঁর। এরপর গত বছরের ১লা অক্টোবর তিনি বিজেপি সঙ্গ ত্যাগ করেন। এর ২৬ দিনের মাথাতেই তিনি যোগ দেন তৃণমূলে। তবে খাতায়-কলমে তিনি এখনও বিজেপিরই বিধায়ক।

সংবিধানে নির্দিষ্ট করে কোথাও এমন লেখা নেই যে বিরোধী শিবিরের কাউকেই পিএসি-র চেয়ারম্যান পদে বসাতে হবে। এও কোথাও লেখা নেই যে শাসকদল ওই পদে নিজেদের কাউকে বসাতে পারবে না। এই সুযোগকেই কাজে লাগিয়ে একুশের নির্বাচনে বিজেপির টিকিটে জিতে বিধায়ক হওয়া ও পরবর্তীতে তৃণমূলে ফেরত আসা মুকুল রায়কে পিএসি-র চেয়ারম্যান করা হয়। তবে খাতায়-কলমে মুকুল রায় এখনও বিজেপির বিধায়ক। সেই আকি প্রেক্ষাপটে এবার পিএসি-র চেয়ারম্যান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কৃষ্ণ কল্যাণীকেও। এর জেরে যে ফের গেরুয়া শিবির আইনি লড়াইয়ের পথে নামতে পারে, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, মুকুল রায় ই-মেল মারফত নিজের ইস্তফাপত্র পাঠালে, তাঁর সঙ্গে সরাসরি কথা বলেন বিধানসভার স্পিকার। নানান খবরাখবর নেওয়ার পর তিনি জানতে চান যে মুকুল রায় কী কোনও চাপের মুখে পড়ে ইস্তফা দিচ্ছেন কী না! এই প্রসঙ্গে স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে মুকুল রায় শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তাঁর ইস্তফাপত্র গ্রহণ করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button