রাজ্য

‘কয়লা তো দূর, ঘুঁটে পাচারে যদি আমার নাম দেখাতে পারে তাহলে ফাঁসিতে ঝুলব’, সিবিআইকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ তৃণমূল বিধায়ক সওকত মোল্লার

একদিকে যখন এসএসসি (SSC) নিয়োগ দুর্নীতি মামলা নিয়ে গোটা রাজ্য উত্তাল, তখনই ফের একবার কয়লা পাচারকাণ্ড (coal smuggling case) নিয়েও হইচই শুরু হয়েছে রাজ্যে। এর আগেই এই মামলায় নাম উঠে এসেছে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) ও তাঁর স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

সম্প্রতি, কয়লা পাচারকাণ্ডে নাম জড়ায় ক্যানিং পূর্বের তৃণমূল বিধায়ক সওকত মোল্লার। তাঁকে তলব করে সিবিআই। গতকাল, শুক্রবার তাঁর সিবিআই দফতরে হাজিরা দেওয়ার কথা থাকলেও, তিনি হাজিরা দেন নি। আর এরই মধ্যে সিবিআইকে এক ওপেন চ্যালেঞ্জ দিয়ে বসলেন তৃণমূল বিধায়ক।

গতকাল সিবিআই দফতরে হাজিরা না দিয়ে পনেরো দিনের সময় চেয়ে নিয়েছেন সওকত মোল্লা। এসবের মধ্যেই সিবিআইকে কার্যত হুঁশিয়ারি শানিয়ে তিনি বললেন, “কয়লা পাচার তো দূরের কথা, ঘুঁটে পাচারে যদি আমার নাম দেখাতে পারে তাহলে আমি ফাঁসিতে ঝুলব”।

গতকাল, শুক্রবার এক কর্মীসভা থেকে সিবিআইকে ওপেন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন সওকত মোল্লা।  বলেন, “আমি কয়লা পাচার কাণ্ডে জড়িত নই। এই মামলা তো দূরের কথা, যদি ঘুঁটে পাচারে আমার নাম জড়িত থাকার প্রমাণ দিতে পারে সিবিআই, তাহলে আমি সেই মুহূর্তেই ফাঁসিতে ঝুলবো। আমাদের দল থেকে এক মীরজাফর ওই দলে (বিজেপি) চলে গিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে চলেছে। নিজের বাবার কাছে গিয়ে বলছে, কিভাবে তৃণমূল দলের নেতাদের কোণঠাসা করা যায়! সেই কারণে তারা বর্তমানে সিবিআই এবং ইডিকে কাজে লাগিয়ে চলেছে”।

এদিন এই সভা থেকে বিজেপিকে তোপ দেগে তিনি বলেন, “প্রতিদিনই আপনারা দেখবেন, আমাদের দলের কোনো না কোনো নেতাকে সমন পাঠাচ্ছে সিবিআই। কিন্তু যারা বিজেপিতে রয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে কোনো রকম পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না”।

শুধু তাই-ই নয়, এদিন কর্মীসভায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসাও সওকত মোল্লা। অভিষেক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমাদের নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ডায়মন্ড হারবার এলাকার বাসিন্দাদের জন্য সর্বদা কাজ করতে প্রস্তুত রয়েছেন। রাস্তা, পানীয় জল থেকে শুরু করে বিদ্যুৎ, নিকাশি ব্যবস্থা সব কিছুর খোঁজ রাখেন উনি। একবার কোনো নির্দেশ দিলেই সেই কাজ এলাকায় তৎক্ষণাৎ হয়ে যায়”।

Related Articles

Back to top button