রাজ্য

প্রতারক আমির খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পরও চুপ ছিল পুলিশ, গার্ডেনরিচ কাণ্ডে এবার ক্লোজ করা হল পার্কস্ট্রীট থানার এসআইকে

গতকাল, শনিবারই উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদ থেকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে গার্ডেনরিচের মোবাইল অ্যাপ প্রতারক আমির খানকে। জানা গিয়েছে, তার বিরুদ্ধে দেড় বছর আগেই অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল পার্কস্ট্রীট থানায়। কিন্তু তা সত্ত্বেও কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পুলিশ। কর্তব্যে গাফিলতির জন্য এবার তাই ক্লোজ করা হল পার্কস্ট্রীট থানার এসআইকে।

ইডি কিছুদিন আগেই ৩২ বছর বয়সি ব্যবসায়ী আমির খানের গার্ডেনরিচের বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালায়। সেই সময় বাড়িতে ছিল না আমির তার ঘরের খাটের তলা থেকে নগদ ১৭ কোটি টাকা উদ্ধার করেছিলেন ইডি আধিকারিকরা। এই ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিল আমির। মোবাইল গেমিং অ্যাপের মাধ্যমে লোককে ঠকিয়ে বিপুল টাকা হাতানোর অভিযোগ ওঠে আমিরের বিরুদ্ধে।

সূত্রের খবর, ই-নাগেটস নামের একটি মোবাইল অ্যাপ তৈরি করেছিল আমির। শুরুর দিকে ওই গেমিং অ্যাপ ব্যবহারকারীদের রিওয়ার্ড পয়েন্ট হিসেবে কমিশন দিত ওই অ্যাপ। অ্যাপে বলা হয়েছিল যে ওই রিওয়ার্ড জমা হচ্ছে অ্যাপ ওয়ালেটে। আর সেটাই ছিল আসল ফাঁদ।

বেশি বেশি কমিশন পাওয়ার জন্য বেশি টাকার কেনাকাটা করেন ব্যবহারকারীরা। এভাবেই প্রচুর লোকের থেকে টাকা আদায় করে আমির। এরপর হঠাৎই বন্ধ হয়ে যায় ওই গেমিং অ্যাপ। সেই সময় ব্যবহারকারীদের বলা হয় যে অ্যাপে আপগ্রেড প্রক্রিয়া চলছে। আর সেই অজুহাতেই ধীরে ধীরে অ্যাপ থেকে সমস্ত ডেটা মুছে দেওয়া হয়।

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন যে এভাবে লোক ঠকিয়ে প্রচুর টাকা কামিয়েছিল আমির। একাধিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে তার নামে। সেখানে জমা রয়েছে কোটি কোটি টাকা। ইডি সূত্রে খবর, এভাবে প্রতারণার মাধ্যমে প্রায় দেড়শো কোটি টাকা আয় করেছিল অভিযুক্ত।

সূত্রের খবর, ২০২১ সালেরব ফেব্রুয়ারি মাসে এই ঘটনায় পার্কস্ট্রীট থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় এক ব্যাঙ্কের তরফে। কিন্তু অভিযোগ জমা পড়ার দীর্ঘদিন কেটে গেলেও এই বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পুলিশ। কোনও তদন্ত হয়নি। পুলিশের এই গাফিলতির পিছনে রাজনৈতিক প্রভাব রয়েছে কী না, তা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। আর এই কারণেই পার্কস্ট্রীট থানার এসআইয়ের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ ওঠে। এর জেরে এবার ক্লোজ করা হল ওই পুলিশকর্তাকে।

Related Articles

Back to top button