রাজ্য

সরকারি চাপ? ‘অত্যন্ত নিন্দনীয় অপরাধ করেছে, আইন আইনের পথেই হাঁটবে’, নওশাদকে নিয়ে আচমকাই মন্তব্য বদল অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের

কিছুদিন আগেই তিনি বলেছিলেন যে আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকির (Nawshad Siddiqi) এতদিন জেল হওয়া উচিত নয়। আদালতের বিচারক চাইলে জামিন দিতেই পারেন। কিন্তু এর দু’দিন পরই নিজের অবস্থান বদল করলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় (Biman Banerjee)। তাঁর কথায়, বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকির বিরুদ্ধে যা যা অভিযোগ রয়েছে, তার বিচার আদালত করবে।

অধ্যক্ষের কথায়, “অতজন পুলিশ অফিসারকে মারা হল প্রকাশ‌্যে। একজন গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব‌্যক্তির নেতৃত্বে এই ধরনের ঘটনা ঘটল। অত‌্যন্ত নিন্দনীয় অপরাধ করেছেন উনি। আইন আইনের পথে চলবে। বিচারপতিরা রয়েছেন। তাঁরা বিচার করে দেখবেন”।

গতকাল, শুক্রবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ফের একবার আইনের কথা মনে করান বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি নওশাদ সম্পর্কে তিনি যে মন্তব্য করেছিলেন, সেই বিষয়ে অধ্যক্ষ বলেন, “আমার বক্তব‌্যকে অনেক সংবাদপত্রে একটু অন‌্যরকমভাবে পরিবেশন করা হয়েছে। কিন্তু আমি বলব, আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নয়। তিনি বিধায়ক হতে পারেন বা যে কেউ হতে পারেন। বিধায়ক বলে কেউ যে বিশেষ সুবিধা পাবেন সেটা ভাবার কিছু নেই”।

এরপরই নওশাদ সম্পর্কে বেশ স্পষ্টভাবেই বিমান বলেন, “কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নন। একজন জননেতার নেতৃত্বে যে ঘটনা সেদিন ঘটেছে কলকাতার রাজপথে, অত পুলিশ অফিসারের উপর অত‌্যাচার হয়েছে, সেটা বাঞ্ছনীয় নয়। বিচারপতিরা এটা বিচার করে দেখবেন”।

বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায় বিধায়ক হোক বা সাধারণ মানুষ, আইন সকলের জন্য সমান। তাঁর কথায়, “আরও দু’জন বিধায়ক জেলে রয়েছেন। বিধায়ক বলে তাঁকে (নওশাদ সিদ্দিকি) সুবিধা করে দেওয়ার জন‌্য কিন্তু আমি কোনও বক্তব‌্য রাখিনি। এটার যেন কোনও বিকৃত অর্থ কেউ না করে”। বারবার তিনি বলেন, “খুব স্পষ্ট করে বলতে চাই, নওশাদের ক্ষেত্রেও আইন আইনের পথে হাঁটবে”।

তবে দু’দিন আগেই নওশাদের গ্রেফতারি নিয়ে বিমান বলেছিলেন, “বিচারপতিরা তো বেল দিতেই পারেন। এমন কথা বলার কী মানে আছে? তিনি তো নির্দেশ দিতেই পারেন। বিচারপতি হিসেবে যদি উনি মনেই করেন যে, জামিন হয়ে যাওয়া উচিত ছিল। সে ভাবে তিনি নির্দেশ দিতেই পারেন। বেল হয়ে যাবে বলেই আইনজীবী হিসেবে মনে করি। স্পিকার বা বিধায়ক হিসেবে নয়। আইনজীবী হিসেবে মনে করি না ওর এত দিন জেলে থাকা উচিত”। এর দু’দিনের মাথাতেই তাঁর এমন মন্তব্যে বদল আসায় তা নিয়ে বেশ চর্চা শুরু হয়েছে।

debangon chakraborty

Related Articles

Back to top button