রাজ্য

ট্রেন বাতিলের জেরে যাত্রীদের বিক্ষোভ, অবরোধ, উপায় না পেয়ে বর্ধমান-হাওড়া রুটে বিশেষ ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিল রেল

গত দু’দিন ধরে ট্রেন বাতিলের জেরে হুগলীর খন্যান স্টেশন ও বর্ধমানের নানান স্টেশনে বিক্ষোভ দেখান নিত্যযাত্রীরা। ট্রেন অবরোধ করেন তারা। এই কারণে এবার হাওড়া-বর্ধমান রুটে বিশেষ কিছু ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিল রেল কর্তৃপক্ষ। আজ, বুধবার ৭ই সেপ্টেম্বর থেকে আগামী ১৩ই সেপ্টেম্বর এক সপ্তাহ চলবে এই বিশেষ ট্রেনগুলি। প্রত্যেক হল্ট স্টেশনে দাঁড়াবে ট্রেনগুলি। এর জেরে যাত্রীদের ভোগান্তি খানিকটা কমবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

লাইনে ইন্টারলকিংয়ের কাজ চলছে। এর জেরে হাওড়া-বর্ধমান মেইন লাইনে বেশ কিছু ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। আর এর জেরে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় নিত্যযাত্রীদের। এর জেরে হুগলীর নানান স্টেশনে বিক্ষোভ, অবরোধ করেন যাত্রীরা। ব্যাহত হয় ট্রেন পরিষেবা। এর জেরে বিশেষ ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় রেল।

জানা যাচ্ছে, মেন লাইনে হাওড়া থেকে প্রথম ট্রেন ছাড়বে ভোর ৪টে ১৫ মিনিটে। এর পরের ট্রেনগুলি হাওড়া থেকে ছাড়বে যথাক্রমে ৫টা ২৭, ৬টা ৫৮, ১০টা ০৫, ১১টা ২৫, দুপুর ২টো ২০, ২টো ৫৫, ৩টে ৩০, বিকেল ৫টা ৫ এবং রাত ৮টা ২০ মিনিটে। মেমারি স্টেশন পর্যন্ত ট্রেনগুলি চলবে।

আবার মেমারি স্টেশন থেকে হাওড়ার দিকে প্রথম ট্রেন রওনা দেবে সকাল ৬টা ১০ মিনিটে। তারপর যথাক্রমে ৭টা ১৫, ৮টা ৫০, দুপুর ১২টা, ১টা ২০, বিকেল ৪টে ২০, ৪টে ৫০, ৫টা ২০. সন্ধ্যে সাড়ে ৭টা এবং রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে।

রেল সূত্রের খবর অনুযায়ী, কর্ড লাইনে হাওড়া থেকে মশাগ্রামে প্রথম ট্রেনটি ছাড়বে ভোর ৪টের সময়। এর পরের ট্রেনগুলি ছাড়বে ৪টে ৫৫, ৭টা ৭ মিনিট, ১০টা ১৫ মিনিট, ১১টা ২২ মিনিট, দুপুর ১২টা ০৫ মিনিট, ১টা ৩২ মিনিটে। উল্টোদিক থেকে সন্ধ্যে ৬টা ০৫, ৬টা ৩০ মিনিট, ৬টা ৫৭ এবং ৮টা ২০ মিনিটে ট্রেন ছাড়বে। 

এই রুটে মশাগ্রাম থেকে হাওড়া আসার প্রথম ট্রেনটি ছাড়বে সকাল ৫টা ৪০ মিনিটে। পরের ট্রেনগুলি ছাড়বে ৬টা ৩৫ মিনিট, ৮টা ৫০ মিনিট, ১১টা ৫৫, দুপুর ১টা ২০ মিনিট, ১টা ৪৫ মিনিট, ৩টে ২০ মিনিটে। আর ট্রেন ছাড়বে সন্ধ্যে ৭টা ৫৫ মিনিটে। পরের ট্রেনগুলি ছাড়বে ৮টা ২০, ৮টা ৪০ এবং ১০টা ০৫ মিনিটে।

ট্রেন বাতিল হওয়া নিয়ে গত দু’দিন ধরে যাত্রীদের মধ্যে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছিল। ইন্টারলকিংয়ের কাজের জন্য হাওড়া-বর্ধমান শাখার বেশ কিছু ট্রেন বাতিল করা হয়। সেই বিজ্ঞপ্তি দেখেই কার্যত রেগে যান নিত্যযাত্রীরা। এর জেরে এই বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা। তবে রেলের কাজ চলবে সেপ্টেম্বর মাসের শেষ পর্যন্ত।

Related Articles

Back to top button