রাজ্য

BIG NEWS: এবার তৃণমূলে যোগদান করবেন শ্রাবন্তী? জল্পনা বাড়ছে দুই তৃণমূল বিধায়কের মন্তব্যে

আজ, বৃহস্পতিবার সকালেই সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় ঘোষণা করেন যে তিনি বিজেপি ছাড়ছেন। কারণ হিসেবে তিনি বলেন যে রাজ্যের উন্নয়নের স্বার্থে বিজেপি সেভাবে কোনও গ্রহণযোগ্য পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এরপর থেকেই তাঁর তৃণমূলে যোগ দেওয়া নিয়ে গভীর জল্পনা শুরু হয়েছে।

অনেকেরই দাবী তৃণমূলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কারণেই শ্রাবন্তী বিজেপি ছেড়েছেন। এই আলোচনায় দুটি বিষয় উঠে আসছে। এক, দোলের দিন গঙ্গাবক্ষে মদন মিত্রের সঙ্গে শ্রাবন্তী দোল খেলা আর দুই, শ্রাবন্তীর চর্চিত প্রেমিক অভিরূপ নাগ চৌধুরীর বিশ্বকর্মা পুজোতে মদন মিত্রের সঙ্গে শ্রাবন্তীর আলাপচারিতা।

এই ঘটনাগুলি থেকেই অনেকেরই মনে হয়েছে শ্রাবন্তী তৃণমূলে জঘ দেওয়ার জন্যই বিজেপি ছেড়েছেন। এই বিষয়ে মদন মিত্র এক সংবাদমাধ্যমে বলেন, “ডোন্ট বি লেট… ওয়েলকাম”। তিনি আরও যোগ করেন, “হোয়াট MM থিঙ্কস টুডে, এভরিওয়ান থিঙ্কস টুমরো। আমি এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করব না”।

এদিন হাওড়ার চামরাইল ইয়ং স্টার ক্লাবের জগদ্ধাত্রী পুজোয় গিয়েছিলেন মদন মিত্র। সেখান থেকে তিনি বলেন, “টুডে ইজ আ লাভলি ডে। বাড়ি থেকে বেরোনোর সময় দেখলাম, শ্রাবন্তী টুইট করেছে, বিজেপির সঙ্গে বিচ্ছেদ করলাম। কারণ, বিজেপি এমন দল যাঁরা বাংলার জন্য কোনওদিনই সিরিয়ালি বাংলার ভালো মন্দ বা এগিয়ে যাওয়ার সঙ্গে যোগাযোগ রাখে না। আমার হঠাৎ মনে পড়ে গেল, হোয়াট MM থিঙ্কস টুডে, মেনি পলিটিশিয়ান থিঙ্কস টুমরো। আজ মদন মিত্র যা ভাবে, কাল বাকি পলিটিশিয়ানরা তাই ভাবে। আমি শ্রাবন্তীর টুইটের জবাব দিয়েছি। বলেছি, ওহ লাভলি”।

দোলের দিন গঙ্গাবক্ষে দোল খেলা নিয়ে মদন মিত্র বলেনব, “যেদিন আমি শ্রাবন্তী, তনুশ্রী ও পায়েলকে নিয়ে দোল খেলতে গিয়েছিলাম, সেদিন ওদের রাজ্যপাল তথা নেতা (তথাগত রায়) বলেছিলেন, বিজেপির প্রার্থীরা এখন নটী হয়েছে। এঁরা পয়সা নিয়ে মদন মিত্রের সঙ্গে লঞ্চ বিহার করতে গিয়েছিল। আর আজ দিলীপ ঘোষ বলছেন, কে শ্রাবন্তী? চিনিই না। উনি আবার বিজেপি কবে করতেন? অথচ উনি প্রার্থী ছিলেন। যদি শ্রাবন্তী পাঁচটা ভোটও পেয়ে থাকেন, সেটা বিজেপির প্রতীকে। অর্থাৎ যাঁরা তাঁকে বিজেপি ভেবে ভোট দিয়েছিলেন, তাঁদের সঙ্গে প্রতারণা হয়েছে। একজন নর্তকী বলছেন। কার্যত অপমান করেছেন। একজন বলছেন তাঁর অস্তিত্ব ছিল না”।

আরও পড়ুন- মহিলার গায়ে হাত, জোর করে চুমু সরকারি অফিসারের, অফিসে যৌন হেনস্থার শিকার মহিলা কর্মী

এদিকে শ্রাবন্তীর বিজেপি ছাড়া নিয়ে পরিচালক তথা তৃণমূল বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী বলেন যে তাঁর সঙ্গে শ্রাবন্তীর এই নিয়ে কোনও কথা হয়নি। তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবন উস্কে দিয়ে রাজ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী শ্রাবন্তীকে মানুষ হিসেবে বেশ পছন্দ করেন। তাঁকে জন্মদিন থেকে শুরু করে পুজো, সব উপলক্ষ্যেই উপহার পাঠান।

এরপরই রাজের সংযোজন, “দিদি কিন্তু কোনও দিন দেখেন না, কে কোন দলের হয়ে কাজ করছে। তাঁর কাছে আগে ভালবাসা, পরে রাজনীতি। আর সেই কারণেই দিদির দরজা সকলের জন্য খোলা”। অর্থাৎ, আকারে-ইঙ্গিতে রাজ স্পষ্ট করে দেন যে শ্রাবন্তী তৃণমূলে যোগ দিতে চাইলে দল যে তাঁকে গ্রহণ করবে।

Related Articles

Back to top button