সব খবর সবার আগে।

নতুন করে টেট পরীক্ষা নিতেই হবে, রাজ্য সরকারকে কড়া নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

শিক্ষক নিয়োগ মামলায় ধাক্কা রাজ্যের। ফের নতুন করে টেট পরীক্ষা নিতে হবে, এমনটাই নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। D.EL.ED উত্তীর্ণদের জন্য যাতে নতুন করে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়, এমনই নির্দেশ দেওয়া হল শীর্ষ আদালতের তরফে। আগামী ৩১শে মার্চের মদ্দধেই এই পরীক্ষা নিতে হবে রাজ্য সরকারকে। কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিচারপতি কৃষ্ণ মুরারি ও বিচারপতি আব্দুর নাজিরের ডিভিশন বেঞ্চ।

মামলাকারীরা অভিযোগ জানিয়েছিলেন যে ২০১৫ সালের পর থেকে এই রাজ্যে কোনও টেট পরীক্ষা হয়নি। এনসিটিই গাইডলাইন অনুযায়ী, বছরে অন্তত একবার টেট পরীক্ষা নিতে হবে। যারা D.EL.ED পাশ করেছেন, তাদের বয়সের দিকটাও মাথায় রাখা দরকার।

২০১৭ সালে টেট পরীক্ষা নেওয়ার নোটিফিকেশন দেওয়া হয়েছিল। ফর্মও ফিলাপের কাজ সেই সময়ই হয়ে যায়। কিন্তু সেই পরীক্ষা হয় ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে।

আরও পড়ুন- কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ প্রণব মুখোপাধ্যায়ের পুত্র অভিজিতের, দিলেন ‘দিদি’র অনুগত সৈনিক হওয়ার বার্তা

এর আগে ৩১ জানুয়ারি প্রাথমিকের টেট পরীক্ষায় বসার জন্য কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন ২০১৮-২০২০ D.EL.ED ব্যাচের বেশকিছু চাকরি প্রার্থী। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজ ২০১৮-২০২০ D.EL.ED ব্যাচের মামলাকারী পরীক্ষার্থীদের পক্ষে রায় দেন।

তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, “যারা এই ৪ বছরের মধ্যে এলিজিবল হল তাদেরও পরীক্ষায় বসতে দেওয়া হোক কারণ পরীক্ষা না নেওয়াটা বোর্ডের ব্যর্থতা। হাইকোর্টে জাস্টিস রাজর্ষি ভরদ্বাজের সিঙ্গেল বেঞ্চ আমাদের জিতিয়ে অর্ডার দেন পরীক্ষায় বসার। আমরা পরীক্ষা দিই কিন্তু তারপর বোর্ড ডিভিশন বেঞ্চে যায় এবং সৌমেন সেন ও সুগত ভট্টাচার্য এর ডিভিশন বেঞ্চ আমাদের হারিয়ে দেয়”।

এরপর রাজ্য ডিভিশন বেঞ্চে যায়। সেই সময় ডিভিশন বেঞ্চ আবার রাজ্যের পক্ষে রায় দেয়। এই কারণে বেশ কিছু পরীক্ষার্থী সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন। এবার সেই মামলার রায় গেল পরীক্ষার্থীদের দিকেই।

You might also like
Comments
Loading...