রাজ্য

‘অভিষেককে নিয়ে পা কাঁপছে ওঁর’, অভিষেকের পিতৃপরিচয় নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায় শুভেন্দুকে বেলাগাম তোপ কুণালের

শাসক দলকে বারবারই নানান কড়া ভাষায় শানাতে দেখা যায় রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে (Suvendu Adhikari)। এক দলীয় সভায় এবার তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) পিতৃপরিচয় নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর সেই মন্তব্যের বিরুদ্ধে এবার সরব তৃণমূল (TMC)। বিরোধী দলনেতার সেই মন্তব্যকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে দাগে শাসক দল।

গত ১৬ই সেপ্টেম্বর পূর্ব মেদিনীপুরের চণ্ডীপুরে এক দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। সেই দলীয় সভা থেকেই নানান বিষয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দাগেন তিনি। কটাক্ষ করেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও। এদিনের এই সভা থেকে অভিষেককে ‘মাকাল ফল’ বলে কটাক্ষ করার পাশাপাশি তাঁর পিতৃপরিচয় নিয়েও বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন শুভেন্দু।

মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায় শুভেন্দুর সেই মন্তব্য। তাঁর সেই মন্তব্যের সমালোচনা করা হয় তৃণমূলের শশী পাঁজা ও কুণাল ঘোষের তরফে। রাজ্যের বিরোধী দলনেতার মন্তব্যকে দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে উল্লেখ করেন জাতীয় মুখপাত্র তথা মন্ত্রী শশী পাঁজা। তাঁর কথায়, “এটা বাংলার সংস্কৃতি নয়।আমার মত অনেকের সঙ্গে মিলতে না পারে। কিন্তু এত তলানিতে রাজনীতিকে নামাবেন না। আমরা রাজনীতি করি। আমরা এইভাবে কোনও ব্যক্তিকে অপমান করলে নিজেকেও অপমান করাও হয়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পিতৃপরিচয় নিয়ে প্রশ্ন তোলা দেবীকে অপমান। কীভাবে একটা মানুষের বিকৃত মানসিকতা হতে পারে, তা ভাবতে পারছি না। আমরা ধিক্কার জানাই”।

এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষও রাজ্যের বিরোধী দলনেতার মন্তব্যের সমালোচনা করেন। তিনি বলেব, “এটা বিজেপির সংস্কৃতি। অভিষেকের দোষ কী? ডাক্তারের ছেলে ডাক্তার, উকিলের ছেলে উকিল হলে কিংবা শিক্ষিকার মেয়ে শিক্ষিকা হলে সেটা দোষের? অধিকারী পরিবার থেকে এসে কেন এত হিংসা? অভিষেক তো বয়সে এত ছোট। তাতেই অভিষেককে নিয়ে পা কাঁপছে? ১৫ বছর পর দেখলে কী করবে”।

তৃণমূলের বক্তব্য, রাজনীতিতে আক্রমণ, প্রতি আক্রমণ, কটাক্ষ লেগেই থাকবে। কিন্তু তরুণ নেতাকে নিয়ে বা তাঁর পিতৃপরিচয় নিয়ে এমন নোংরা মন্তব্য একেবারেই করা উচিত হয়নি বিজেপি নেতার। শুভেন্দু এহেন মন্তব্যকে নানান মহলের তরফেই সমালোচিত করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button