রাজ্য

‘জো জিতা ওহি সিকন্দর’, ভবানীপুরে মমতার জয়ের পর অভিনন্দন জানালেন তথাগত রায়, অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

একুশের নির্বাচনে বিজেপির হারের কারণ হিসেবে দলকেই দায়ী করেছিলেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়। ভবানীপুরে উপনির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পর তিনি বলেছিলেন যে পার্টি অফিসের যিনি ফাই-ফরমাশ খাটেন, তাঁকে প্রার্থী করতে।, তাঁর এমন মন্তব্য নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। এবার তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁর ভবানীপুরের জিতের জন্য অভিনন্দন জানালেন। আর এই টুইটের কারণেই বেশ অস্বস্তিতে পড়তে হল বঙ্গ-বিজেপি নেতাদের।

টুইটের শুরুতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানিয়ে মেঘালয়ের রাজ্যপাল লেখেন,  “‌আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই জয়ের জন্য তাঁকে অভিনন্দন জানাই। আমি তাঁর রাজনীতিকে সমর্থন করি না।  কিন্তু তিনি আমারও মুখ্যমন্ত্রী। এই নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে পরে অনেককিছু জানাবো। এখন তাঁকে অভিনন্দন জানাই। জো জিতা ওহি সিকন্দর”।‌ অর্থাৎ শেষ পর্যন্ত যিনি জয়ী হয়েছেন, তাঁকেই সেরা বোঝাতে চেয়েছেন তথাগত রায়, এমনটাই মত ওয়াকিবহাল মহলের। বিজেপির পরাজয় নিয়ে কিছু না বললেও বিজেপিকে বঙ্গ বিজেপিকে ঠুকেই যে তিনি এই বার্তা দিয়েছেন, তা বেশ স্পষ্ট।

তবে শুধু তথাগত রায়ই নন, ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ের জন্য তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারও। বাদ যাননি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ও। জয় বলেন, “‌আদালতে গিয়ে ভোটের লড়াই হয় না। নির্বাচন কমিশনে গিয়েও হয় না। ভোটটা ময়দানে লড়তে হবে। এই জয়ের তুলনা নেই।  আপনি অপ্রতিরোধ্য। আপনার হাত ধরে বাঙালির জয়, বাংলার জয় আসবেই”। ভবানীপুরে এমন ফলাফলের পর এখন বিজেপি কার্যালয়ে কার্যত বিষাদের সুর। আর এর উপর এমন পর পর খোঁচা দিয়ে বার্তা যে আগুনে ঘি ঢালার কাজ করছে, তা মনে করাই যায়।

প্রসঙ্গত, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হারের পর দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়দের বেশ চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করেছিলেন তথাগত রায়। এমনকি নানান টলি অভিনেত্রীদের প্রার্থী করা নিয়েও তোপ দেগেছিলেম তিনি।

এই বিষয়ে তথাগত রায় বলেছিলেন, নগরের নটিরা টাকা নিয়ে কেলি করেছেন। কর্মীদের বিপদের দিনে ‘কেডিএসএ’ কোথায় ছিল, এ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন তথাগত রায়। তবে ভবানীপুরের প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টবরেওয়াল যখন তাঁর বাড়িতে যান, তখন তাঁকে আশীর্বাদও দিয়েছিলেন তিনি।

Related Articles

Back to top button