সব খবর সবার আগে।

স্মৃতির পুজো! কোনও জৌলুস-আড়ম্বরহীন কলকাতার এই পুজোর থিম ‘ভোট পরবর্তী হিংসা’

করোনা আবহে এটাই দ্বিতীয় দুর্গাপুজো। নানান ক্লাবের মণ্ডপ এচবছর সেজে উঠছে সাম্প্রতিক কোনও ঘটনার থিম নিয়ে। তবে কলকাতার এই পুজোর মণ্ডপে কোনও থিম নেই।নেই সেরা পুজোর পুরস্কার পাওয়ার দৌড়। তবে থিম না থেকেও যেন কোনও একটা থিম থেকে গিয়েছে এই পুজোয়। আর সেই থিমের নাম ‘ভোট পরবর্তী হিংসা’।

জায়গা কলকাতার কাঁকুড়গাছির একটি পুজো। যে পুজোটি শুরু হয়েছিল ভোট পরবর্তী হিংসায় মৃত বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকারের হাত ধরে। তাঁর মৃত্যুর জন্য দায়ী করা হয় শাসকদলকে। এই বছর সে আর নেই। তাই ভাইয়ের অনুস্পস্থিতিতে এই পুজোর দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিলেন তাঁর দাদা বিশ্বজিৎ সরকার।

এই পুজো মণ্ডপে কোনও আলোকসজ্জা চোখে পড়বে না। থাকবে না কোনও রোশনাই। মণ্ডপ জুড়ে রয়েছে এক অদ্ভুত নীরবতা। এটা হয়ত একটা থিম বা বলা যেতে পারে এক কঠিন বাস্তব। এই পুজো মণ্ডপের বাইরে রাখা থাকবে বিধানসভা নির্বাচনের পর ভোট পরবর্তী হিংসায় বলি হওয়া ৪০ জন শহিদের ছবি ও নাম।

গত ২রা মে একুশের নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের দিনই তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতে খুন হন বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকার। এই পুজোর বিষয়ে অভিজিৎ-এর দাদার বক্তব্য, “এই পুজো ভাই শুরু করেছিল। তাকে ভোট পরবর্তী হিংসায় খুন হতে হয়েছে। রাজ্যজুড়ে আরও বহু মানুষকে খুন করা হয়েছে। তাই আমরা এই পুজোর মাধ্যমে মানুষের মনে আবার সেই স্মৃতি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করলাম। এটাই আমাদের পুজোর থিম। খুন হওয়া সেই মানুষগুলিকে শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি মানুষের সামনে ভোট-পরবর্তী হিংসার সেই ভয়ঙ্কর মুহূর্তটা তুলে আনার চেষ্টা করার জন্যই এরকম ফ্লেক্স দেওয়া হয়েছে। মা দুর্গার কাছে আমাদের প্রার্থনা যে অসুরগুলো প্রিয়জনদের কেড়ে নিয়েছে, তাদের যেন মা যোগ্য শাস্তি দেয়”।

কাঁকুড়গাছির এই পুজোয় সেভাবে কোনও সেই আনন্দ, উল্লাস নেই। যা রয়েছে তা হল স্মৃতি, তাও দুঃখের। ৩২ বছরের তরতাজা প্রাণকে শেষ করে দেওয়ার সেই দুঃখকে সঙ্গে নিয়েই পুজো চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন অভিজিতের দাদা ও মা। পুজোর মাধ্যমেই অভিজিতের স্মৃতিটুকু আঁকড়ে বেঁচে থাকতে চায় পরিবার।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...