সব খবর সবার আগে।

বিজেপিকে ভোট দেওয়ার ফল, ছিন্ন করা হল জলের সংযোগ, অভিযোগের তীর তৃণমূলের বিরুদ্ধে

আগে বাম জমানায় বিরোধীদের ভোট দিলে ধোপা, নাপিত বন্ধ করার অভিযোগ শোনা যেত। এবার সেই প্রবণতাই হয়ত ফের ফিরে আসছে। বিজেপিকে ভোট দেওয়ার শাস্তিস্বরূপ জলটুকু জুটছে না মানুষের কপালে। হ্যাঁ, এমনই নিদর্শন দেখা গিয়েছে পশ্চিম বর্ধমানে।

এই জেলার বারবনি সালানপুর নলের দেন্দুয়া পঞ্চায়েতের অন্তর্গত দুটি গ্রাম বাজনডাঙা ও মহেশপুর। এমনিতেই ওই এলাকায় জলের কষ্ট। ভোটের আগে স্থানীয় বাসিন্দারা দাবী তোলেন যে জল না দিলে ভোট মিলবে না। এরপরই তরিঘরি গ্রামে জল সংযোগের ব্যবস্থা করে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত।

আরও পড়ুন- বিজেপি করা ‘অপরাধ’! প্রকাশ্য রাস্তায় ‘বাংলার মেয়ে’কে কান ধরে উঠবস করালেন তৃণমূল নেত্রী

কিন্তু ভোটের ফলাফলের দিন ফাটল বোমা। ভোট পড়েছে কিন্তু তৃণমূল রয়েছে পিছিয়ে। প্রায় ৮০ শতাংশ ভোট পেয়েছে বিজেপি। এরপরই এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, জলের সংযোগ কেটে নেওয়া হয়েছে। এই নিয়ে সরব হয়েছে বিজেপি নেতৃত্বও। কিন্তু এই অভিযোগ মানতে নারাজ তৃণমূল।

স্থানীয় সূত্রের খবর অনুযায়ী, গ্রামে জল এসেছিল। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে দেখা যাচ্ছে সেই জল সরবরাহ বন্ধ। তাই বাধ্য হয়ে অনেকটা পথ হেঁটে জল নিতে আসতে হচ্ছে বাসিন্দাদের। তাদের অভিযোগ, এখানে তৃণমূল ভোটে হেরে গিয়েছে বলেই জলের সংযোগ ছিন্ন করেছে। তবে অভিযোগ মানতে চাননি দেন্দুয়া পঞ্চায়েতের উপপ্রধান রঞ্জন দত্ত। তিনি বলেন,’ কারিগরি ত্রুটির জন্য সমস্যা হয়েছে। দ্রুত সমস্যা মেটানো হবে।’ এদিকে বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, ‘আমাদের যাঁরা ভোট দিয়েছেন তাঁদের নানাভাবে সমস্য়ায় ফেলার চেষ্টা করছে তৃণমূল।’

আরও পড়ুন- অশোক ভট্টাচার্য অতীত! ‘হেরো’ গৌতম দেবকে শিলিগুড়ির পুরপ্রশাসক পদে বসালেন মমতা

সূত্রের খবর, ভোটের আগে বাসিন্দাদের মন জয় করতে চেয়েছিল পঞ্চায়েত। এই কারণে জলসংযোগের গোটা প্রক্রিয়াটি অস্থায়ীভাবে করেছিল। জানা যায়, সরকারি জলের লাইনের পাইপ থেকে নানা কারসাজি করে ওখানে জলের সংযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন এই নিয়ে ফের সমস্যা দেখা দিয়েছে। কিন্তু পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষের তরফে একথা একেবারেই স্বীকার করা হয়নি।

You might also like
Comments
Loading...