রাজ্য

মধ্যযুগীয় বর্বরতা শাসকদলের! কংগ্রেস প্রার্থীকে প্রকাশ্য রাস্তায় অ’র্ধ’ন’গ্ন করে মারধর, তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের থানায়

গত রবিবার ছিল কলকাতা পুরসভার নির্বাচন। এদিন দিনভর মহানগরীর রাস্তা ছিল উত্তপ্ত। এদিন ভোটে অনিয়ম নিয়ে একাধিক অভিযোগ তোলা হয় বিরোধী দলগুলির তরফে। তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোটলুঠের অভিযোগ করা হয়।

এই নিয়ে সেদিনই বিজেপি-বাম-কংগ্রেসের কর্মীরা একজোট হয়ে উত্তর কলকাতার বড়তলা থানার সামনে বিক্ষোভ দেখান। এরই মধ্যে উঠে এলো আরও এক বিস্ফোরক অভিযোগ। ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কংগ্রেস প্রার্থীকে অ’র্ধ’ন’গ্ন করে রাস্তায় ফেলে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে বড়তলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন খোদ কংগ্রেস প্রার্থী রবি সাহা। কংগ্রেস প্রার্থীকে এমন মারধরের ভিডিও তুমুল গতিতে ভাইরাল হয়েছে।

অভিযোগ, গত রবিবার পুরসভার নির্বাচনের দিন দুপুরবেলা বাড়ি থেকে বেরোন কংগ্রেস প্রার্থী রবি সাহা। তখনই তাঁকে ঘিরে ধরে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। কংগ্রেস প্রার্থীকে হাতের সামনে পেয়ে তাঁকে রাস্তায় ফেলে মারধর করতে থাকে ওই দুষ্কৃতীরা।

দাবী, কংগ্রেস প্রার্থীর প্যান্ট খুলে তাঁকে বিবস্ত্র করে প্রচণ্ড মারধর করা হয়। এর জেরে বেশ আহত হন রবি সাহা। এনআরএস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। এরপর, গতকাল, সোমবার এই ঘটনা নিয়ে বড়তলা থানায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন ওই কংগ্রেস প্রার্থী।

সোমবার বড়তলা থানায় দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন রবি সাহা। অভিযোগকারী কংগ্রেস প্রার্থীর দাবী, তৃণমূল কর্মী পূর্ণ চন্দ্র দাস, তার ছেলে সৌরভ দাস, দ্বীপ এবং আরও বেশ কিছু জন মিলে তাকে মারধর করে।

এই হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। রাজ্যের শাসক শিবিরকে তোপ দেগে তাঁর অভিযোগ, “বাংলায় গণতন্ত্র নয়, চলছে বর্বর দিদিতন্ত্র। একজন মানুষকে জনসমক্ষে নগ্ন করে করে বেধড়ক পেটানো হল কলকাতার রাজপথে। কী তাঁর অপরাধ? তাঁর অপরাধ তিনি কংগ্রেসের হয়ে ভোটে দাঁড়িয়েছেন? ছিঃ দিদি ছিঃ। ধিক্কার”।

আজ, মঙ্গলবার চলছে ভোটগণনা। এর আগে এমন একটি ঘটনা যেন বিরোধীদের অভিযোগকেই আরও বেশি উস্কে দিল।

Related Articles

Back to top button