রাজ্য

বুথে গেলেই প্রাণে মেরে ফেলা হবে, হুমকি তৃণমূল দুষ্কৃতীদের, ভয়ে ঘরে তালাবন্দি বিজেপি কর্মী, চাঞ্চল্য শান্তিপুরে

আজ, ৩০শে অক্টোবর উপনির্বাচন চলছে রাজ্যের চার কেন্দ্রে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর কড়া নিরাপত্তার মধ্যেই চলছে ভোটগ্রহণ। নানা কেন্দ্র থেকে নানান অভিযোগ উঠে এসেছে ইতিমধ্যেই। সকাল থেকেই বেশ উত্তপ্ত শান্তিপুর, খড়দহ, গোসাবা ও দিনহাটা কেন্দ্র।

সকাল থেকে সেরকম বড় কোনও অশান্তির ঘটনার কথা শোনা যায়নি। তবে এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল শান্তিপুরে। শাসক দলের ভয়ে নিজের ছেলেকে ঘরবন্দি করে রাখলেন মা। বিজেপি কর্মী তাপস দাসকে রাতে হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ। এই কারণে আজ বিজেপি এজেন্ট হিসেবে তাঁকে বুথে যেতে দেননি তাঁর মা। ঘরে তালা দিয়ে আটকে রাখেন।

এই ঘটনার জেরে ২৪০ নম্বর বুথে দীর্ঘক্ষণ কোনও বিজেপি এজেন্ট ছিল না। অভিযোগকারী বাড়িতে যান শান্তিপুর উপনির্বাচনের বিজেপি প্রার্থী নিরঞ্জন বিশ্বাস। তাঁর দাবী, শান্তিপুরে তালিবানি শাসন চলছে। শান্তিপুরকে বাংলাদেশে পরিণত করার চেষ্টা চলছে বলেও অভিযোগ তোলেন তিনি।

জানা গিয়েছে, তাপস দাস শান্তিপুর বিধানসভার বেলঘড়িয়া ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের বাহান্নবিঘা এলাকার দায়িত্বে ছিলেন। আজ, ভোটের দিন তিনি বাড়ি থেকে বেরোন নি। তাঁর অভিযোগ, গতকাল সারারাত দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব চালিয়েছে। রাতে একদল দুষ্কৃতী তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়। বিজেপি কর্মীর কথায় তারা তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতী।

বিজেপি কর্মীকে হুমকি দেওয়া হয় যে বুথে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাঁর ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হবে। তাপস দাসের কথায়, দুষ্কৃতীরা তাঁর বাড়িতে হামলা করে ও ভাঙচুরও চালায়। এমনকি, সে যদি বাড়ির বাইরে বের হয়, তাহলে তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলা হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়। তাপস দাসের মায়ের কথায়, “চোখের সামনে সব কিছু দেখে কী ভাবে ছেলেকে বাড়ি থেকে বেরতে দেব”। তাঁর পরিবারের দাবী, এই প্রথমবার নয়, এর আগেও একাধিকবার তাদের হুমকি দেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button