রাজ্য

বেআইনি জমির উপর বাড়ি, বুলডোজার চালিয়ে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার অট্টালিকা

কয়েক বছর আগেই বেশ বড় সুন্দর দেখতে একটি বাড়ি তৈরি করেন বীরভূমের ইলামবাজার ব্লকের বাতিকার অঞ্চলের তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি বদরুল রহমান। সেই বাড়িটিই আদালতের নির্দেশে ভাঙা পড়ল গত শনিবার।

জানা গিয়েছে, পুকুর বুজিয়ে এই অট্টালিকা বানানো হয়েছিল। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ২০১৯ সালে একটি মামলা রুজু করা হয় আদালতে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সেই মামলারই রায় দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। জানানো হয় যে এই বাড়িটি ভেঙে ফেলতে হবে। সেই নির্দেশ কার্যকর করতেই গতকাল, শনিবার পুলিশবাহিনীর উপস্থিতিতেই বুলডোজার চালিয়ে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় তৃণমূল নেতার বাড়িটি।

তবে তৃণমূল নেতার পরিবারের দাবী, তারা জানতেনই না যে এই জমিটি পুকুর বুজিয়ে তাদের বিক্রি করা হয়েছে। তবে বাড়িটি ভাঙার সময় কোনওরকমের বাধা সৃষ্টি করা হয়নি।

আরও পড়ুন- উচ্চমাধ্যমিকে এত পড়ুয়াকে কেন ফেল করানো হল, জবাব চেয়ে মহুয়া দাসকে চিঠি দিল সরকার

জানা গিয়েছে, বদরুল রহমানের এই বাড়িটির দ্বিতীয় তলায় পুরো অংশে মার্বেল এবং টাইলসের কাজ করা ছিল। সেই সুন্দর বাড়িটিই একেবারে গুঁড়িয়ে দিল বুলডোজার।

এই ঘটনার বিষয়ে বদরুল রহমানের ভাই মঈনউদ্দিন শেখ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “যখন এই জায়গাটি কেনা হয়েছিল তখন আমরা জানতাম যে এই জায়গাটি পুকুরের পাড়। কিন্তু পরে এই জমি নিয়ে মামলা রুজু হয়। মামলা হওয়ার পরে আমরা জানতে পারি যে এই জমিটি পুকুরের নামে রেকর্ড করা রয়েছে সরকারি খাতায়। তাই আদালত যা নির্দেশ দিয়েছে সেই নির্দেশ আমরা মাথা পেতে নিয়েছি। বাড়িটি এখন ভেঙে দেওয়া হচ্ছে, আমরা কোনওরকম বাধা দিই নেই সেই ক্ষেত্রে”।

তবে এদিকে এই বাড়ি বা জায়গা নিয়ে মামলা রুজু করার নেপথ্যে রাজনৈতিক অভিসন্ধি খুঁজে পাচ্ছেন মঈনউদ্দিন। তাঁর দাবী করেন, “শুধুমাত্র নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করার লক্ষ্যে এইভাবে মামলা রুজু করা হয়েছে এই জমিটা নিয়ে। আমার দাদা যেহেতু এলাকার তৃণমূল নেতা তাই ওই মামলাকারীরা ব্যক্তিগত আক্রোশের থেকে এই মামলা করেছিলেন”।

Related Articles

Back to top button