রাজ্য

ঘুষি মেরে নাক ফাটিয়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী, বিস্ফোরক অভিযোগ এনে কেঁদে ফেললেন তৃণমূল নেতা

আজ, সোমবার সপ্তাহের শুরুতেই কার্যত তুলকালাম কাণ্ড বিধানসভায়। বগটুই কাণ্ডের রেশ বিধানসভাতেও। এদিন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বিধানসভার স্পিকারকে বলেন যাতে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে আলোচনা করা হয়। কিন্তু তা মানেন নি স্পিকার।

এরপরই বিক্ষোভ শুরু হয় বিধানসভার ওয়েলে নেমে। তৃণমূল-বিজেপি বিধায়কদের মধ্যে শুরু হয় হাতাহাতি। চলতে থাকে কিল-ঘুষি। শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ এনে বলেন যে তাদের বিধায়কদের উপর আক্রমণ করেছে তৃণমূল। মনোজ টিগ্‌গার জামা ছিঁড়ে দেওয়া হয়েছে। এমনকি, বিজেপির মহিলা বিধায়কদের উপর নিগ্রহ করা হয়েছে বলে অভিযোগ আনা হয়েছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

এদিকে আবার শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ আনলেন চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদার। তিনি বলেন যে শুভেন্দু নাকি ঘুষি মেরে তাঁর নাক ফাটিয়ে দিয়েছেন।

এদিন বিধানসভায় ধুন্ধুমার হয়ে যাওয়ার পর বাইরে এসে সাংবাদিক সম্মেলন করছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তাঁর পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন বিধায়ক অসিত মজুমদার। ফিরহাদ হাকিমের কথার মাঝেই তাঁকে কাঁদতে দেখা যায়। এই বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন যে বিজেপির বিধায়করা নাকি তৃণমূলের মহিলাদের গায়ে হাত দিচ্ছিল। তিনি এই বিষয়ে প্রতিবাদ করেন। আর এরপরই নাকি শুভেন্দু তাঁকে ‘টেনে একটা ঘুষি’ মেরেছেন। এর ফলে তাঁর নাক ফেটে গিয়েছে বলেও দাবী করেন তৃণমূল নেতা।

(সংগৃহীতঃ ফেসবুক। খবর ২৪x৭-এর তরফে এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করা হয়নি।)

তবে তৃণমূল বিধায়কের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। পাল্টা তিনি জানান যে তৃণমূলের লোকেরাই বিজেপি বিধায়কদের মেরে হাত ভেঙে দিয়েছে। এমন অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ চলছে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে। এই গোটা ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button