রাজ্য

‘আমি মা কালীকে সুরা গ্রহণ ও মাংস ভক্ষণকারী দেবীরূপেই দেখি’, তথ্যচিত্রের বিতর্কিত পোস্টার নিয়ে মন্তব্য তৃণমূল নেত্রী মহুয়া মৈত্রের

একটি তথ্যচিত্রের পোস্টার নিয়ে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়েছে। পোস্টারে দেখা যাচ্ছে এক মহিলা দেবী কালীরূপে সজ্জিত ও তাঁর মুখে সিগারেট। এই পোস্টার নিয়ে নেট মাধ্যমে তুমুল শোরগোল পড়েছে। নেটিজেনদের একাংশের দাবী, এমন পোস্টার হিন্দু দেবদেবীদের অপমান করছে। হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছে। আবার নেটিজেনদের অন্য এক অংশ নির্মাতাদের পাশেই দাঁড়িয়েছেন। এবার এই বিষয় নিয়ে মুখ খুললেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

আজ, মঙ্গলবার মহুয়া মৈত্র বলেন, “আমার কাছে কালী মানে যিনি মাংস ভক্ষণ এবং সুরা গ্রহণ করেন। নিজের ভগবানকে তুমি কীভাবে দেখতে চাও তা কল্পনা করার অধিকার রয়েছে। কিছু জায়গা রয়েছে যেখানে ভগবানকে হুইস্কি দেওয়া হয়, আবার কিছু কিছু জায়গায় তা ভগবানের অপমানের সমান”।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার একটি পোস্টার টুইট করে পরিচালক লীনা মানিমেকালাই। এই পোস্টারে মা কালীর বেশে এক মহিলাকে দেখা যাচ্ছে। ধূমপান করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। তাঁর হাতে ধরা LGBTQ+-এর একটি পতাকা। এই পোস্টারকে নিয়েই ছড়ায় ব্যাপক বিতর্ক।

নেটিজেনদের একাংশের অভিযোগ, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছেন লীনা মানিমেকালাই। অবিলম্বে ওই পোস্টার বাতিলের দাবী জানানো হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমনকী পরিচালককে গ্রেফতারির দাবীও তুলেছেন অনেকেই। ‘গও মহাসভা’র নেতা অজয় গৌতম ওই ছবি এবং পোস্টারের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশে অভিযোগ জানান।

আবার নেটিজেনদের অপর একটি অংশ আবার নির্মাতাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাঁদের কথায়, নির্মাতারা এই তথ্যচিত্র কোনও নির্দিষ্ট একটি ভাবনা থেকে তৈরি করেছেন। এই বিষয়টি শিল্পের এককেন্দ্রীক। তাই এই নিয়ে এতটা হইচই করা ঠিক নয়। এমনটা করলে নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যকে প্রশয় দেওয়া হবে বলে মত নেটিজেনদের একাংশদের।

লীনা মানিমেকালাই বলেন, “ভালোবাসাকে বেছে নিন, ঘৃণাকে নয়”। তিনি জানান, “টরেন্ট্রো মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির তরফে আমন্ত্রণ জানানো হয় কানাডার পড়ুয়াদের কানাডার সংস্কৃতির বৈচিত্র্য নিয়ে ছবি বানানোর। মা কালী ছবিটি আমি তৈরি করেছি। এতে আমি অভিনয়ও করেছি”।

লীনা আরও বলেন, “একটা সন্ধ্যার গল্প ঘিরে এই ছবি। যখন টরেন্টোর রাস্তায় কালী আবির্ভূত হন। যদি আপনি এই ছবিটা দেখেন তাহলে লীনা মানিমেকালাইকে গ্রেফতারির দাবি জানাবেন না। বলবেন, লীনা তোমাকে আমরা ভালোবাসি। আমার কালী কথা বলবে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে, ভালোবাসাই শ্রেষ্ঠ ধর্ম তাই জানাবে”।

Related Articles

Back to top button