রাজ্য

সর্বভারতীয় দুই প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে আপনি কেন‌ও মৌন? নুসরতের নিশানায় ধনকড়।

ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডাক্তারির দুই সর্বভারতীয় পরীক্ষা নিট (NEET) ও জেইই (JEE) নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সিন্ধান্তে আপনার নিস্তব্ধতায় আমি অবাক। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে (Jagdeep Dhankhar) তোপ শাসকদলের সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan)। যে কোনও ছোট খাটো কারণেই রাজ্য-রাজ্যপালের তরজা শুরু হয়ে যায়। কার্যত এই লড়াই অব্যাহত‌ই রয়েছে।

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক স্বচ্ছতা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দিয়েছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় (Jagdeep Dhankhar)। টুইটের সিরিজে নিজের ক্ষোভও উগরে দিয়েছিলেন তিনি। তবে হঠাৎ করেই কোন‌ও অজ্ঞাত কারণে নিট, জেইই (NEET), (JEE) নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তে তাঁকে কোনও বাক্য বিনিময় করতে দেখা যায়নি। আর এবার রাজ্যপালের সেই বিষয়েই ধনকড়ের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন তৃণমূল সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরত জাহান। রাজ্যপাল যখন রাজ্যের প্রসাশনিক কাজকর্মের সমালোচনায় রত, তখন তাঁকে বিঁধে টুইট করতেও পিছপা হলেন না তৃণমূলের এই সুন্দরী সাংসদ।

“নিট ও জেইই নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারে বড়সড় ভুল সিদ্ধান্তে আপনার নিস্তব্ধতায় আমি সত্যিই হতবাক ধনকড়জি! দয়া করে এবার দেশের পড়ুয়াদের জন্য মুখ খুলুন, এই অতিমারী আবহে যাঁরা সত্যিই প্রচণ্ড সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে”, মন্তব্য নুসরতের। সাংসদের সাফ কথা, NEET, JEE তো অপেক্ষা করতে পারে নাকি!

NEET, JEE পিছনোর দাবিতে উত্তাল গোটা দেশ। দেশজুড়ে ক্রমাগত বড় থাবা বসাচ্ছে অতিমারী। মারণ ভাইরাসের প্রকোপে যেখানে জনজীবন ওষ্ঠাগত, নেই যথাযথ স্বাস্থ্যের পরিকাঠামো, এমন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে NEET এবং JEE পরীক্ষা হওয়া কতটা যুক্তিযুক্ত? সেই প্রশ্ন তুলেই সরব দেশের পড়ুয়ারা। স্বাভাবিকভাবেই উদ্বিগ্ন অভিভাবকমহলও। কারণ, এমন অতিমারীর আবহে যেখানে নিজেদের সতর্কতার চাদরে মুড়ে রাখার কথা, সেখানে কিনা পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে পরীক্ষা দিতে হবে! ইঞ্জিনিয়ার এবং ডাক্তারি এন্ট্রাস পরীক্ষা পিছনো ছাড়া উপায় কী? এই দাবি তুলে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেও দেশের শীর্ষ আদালত তা নাকচ করে দিয়েছে।

করোনার কারণে এপ্রিল থেকে একাধিকবার পিছোনোর পর সেপ্টেম্বরের শুরুতে সারা দেশে ইঞ্জিনিয়ারিং (JEE-Main) এবং ডাক্তারি প্রবেশিকা (NEET-UG) পরীক্ষা হওয়ার দিন ধার্য হয়েছে। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের তরফে স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে নানা পদক্ষেপের কথা ঘোষণাও করা হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে। শুরু থেকেই সেপ্টেম্বরে পরীক্ষা নেওয়ার এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button