রাজ্য

‘মন্ত্রী হওয়ার পরই রেলের ভাড়া বাড়িয়ে দেন’, কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরীকে কেন্দ্রীয় সরকারের ‘হাফপ্যান্ট মন্ত্রী’ বলে কটাক্ষ তৃণমূল সাংসদের

সামনেই পঞ্চায়েত নির্বাচন (Panchayet Electiob)। এমন আবহে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিই নিজেদের মতো করে ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে। জেলায় জেলায় চলছে নানান কর্মসূচি। এবার মুর্শিদাবাদে (Murshidabad) গিয়ে কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরীকে (Adhir Choudhury) তোপ দাগলেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন (Santanu Sen)। অধীরকে ‘হাফপ্যান্ট মন্ত্রী’ বলে কটাক্ষ করলেন তিনি।

গতকাল, সোমবার মুর্শিদাবাদের কান্দিতে তৃণমূলের উদ্যোগে আয়োজন করা হয়েছিল প্রতিবাদ সভার। এই সভা থেকেই ১০০ দিনের কাজ থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক বঞ্চনার অভিযোগ আনেন শান্তনু সেন। এরপরই অধীর চৌধুরীকে একহাত নেন তিনি। তাঁর দাবী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন রেলমন্ত্রী ছিলেন, তখন তিনি রেলের স্বার্থে অনেক কিছু করেছিলেন। কিন্তু অধীর চৌধুরী রেল প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পরই রেলের ভাড়া বাড়িয়ে দেন।

এদিন সভা থেকে অধীর প্রসঙ্গে শান্তনু বলেন, “কিছুদিনের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের হাফপ্যান্ট পরা রেলমন্ত্রী ছিলেন। আর মন্ত্রী হওয়ার পরই তাঁর প্রথম কাজ ছিল রেলের ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়া, মেট্রোর ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়া, প্লাটফর্ম টিকিটের ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়া”।

এর পাশাপাশি তৃণমূল সাংসদ এও মনে করিয়ে দেন যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রেলমন্ত্রী থাকাকালীন রেলের জন্য কী কী করেছিলেন। শান্তনু উল্লেখ করেন, ২৫ টাকায় ১০০ কিমি যাতায়াতের ব্যবস্থা করেছিলেন মমতা। ভাড়া না বাড়িয়ে রেলকে একটা শিল্পের জায়গায় নিয়ে গিয়েছিলেন।

কান্দির তৃণমূল কর্মীদের এই প্রতিবাদ সভায় এদিন শান্তনু সেন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মুর্শিদাবাদ সাংগঠনিক জেলার তৃণমূল সভানেত্রী শাওনি সিংহ রায়, কান্দি তৃণমূল সভাপতি বাগবুল হোসেন, মুর্শিদাবাদ জেলা আইএনটিটিইউ সভাপতি প্রার্থ প্রতীম সরকার, কান্দি তৃণমূল নেত্রী কাকলী রাজবংশী ও আরও অনেকে।

কান্দির এই একই জায়গায় একদিন আগেই সভা করে গিয়েছেন অধীর চৌধুরী। সেই প্রসঙ্গে শান্তনু সেন বলেন, “এখানে এসে কু-কথার দূষণ ছড়িয়ে গিয়েছেন তিনি”।

তৃণমূল সাংসদের এহেন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে জেলা কংগ্রেস মুখপাত্র জয়ন্ত দাস বলেন, “ শান্তনু সেন তৃণমূলের ভাড়াটে নেতা। জেলার নেতারা যা শিখিয়েছেন, সেটাই বলেছেন তিনি”। হাফপ্যান্ট মন্ত্রী প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতার দাবী, “অধীর চৌধুরী যখন মন্ত্রী ছিলেন, তখন বোধ হয় শান্তনু সেন হাফপ্যান্ট পরতেন”।

Related Articles

Back to top button