রাজ্য

‘হাফপ্যান্ট’ পরে গ্রাম পঞ্চায়তে আসা যাবে না, নির্দেশ তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধানের, পোশাক বিধি নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে

হাফপ্যান্ট পরে পঞ্চায়েত দফতরে আসার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল নদিয়ার রাণাঘাটের এক তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত দফতরের তরফে। এই নির্দেশিকা দিলেন ওই দফতরের পঞ্চায়েত প্রধান। পোশাক বিধি নিয়ে পঞ্চায়েত প্রধানের এমন নির্দেশিকা জারি ক্তায় ওই এলাকায় শুরু হয়েছে বিতর্ক।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল, বুধবার রাণাঘাটের রামনগর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত দফতরে। এদিন নানান কাজ নিয়ে পঞ্চায়েতে আসা গ্রামবাসীরা দেখেন যে দফতরের গেটের সামনে একটি সাদা কাগজ সাঁটানো। তাতে লেখা, ‘হাফ প্যান্ট পড়ে কেউ অফিসে আসবেন না’। এই নির্দেশের নীচে সই করে লেখা রয়েছে, ‘আদেশানুসারে রামনগর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান’।

এমন নির্দেশিকা নিয়ে নানান মহলে নানান প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। হঠাৎ পঞ্চায়েত দফতরে পোশাক বিধি জারি করা হল কেন? এমন ধরণের নির্দেশের কী দরকার পড়ল যে তা নির্দেশিকার আকারে দফতরের গেটে সেঁটে দেওকার দরকার পড়ল?

আরও পড়ুন- ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প বন্ধের দাবী, হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন রেশন ডিলারদের

এই ঘটনা প্রসঙ্গে রামনগর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সুজিত জোয়ারদার জানান, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মহিলাদের জন্য নানা প্রকল্প ঘোষণা করছেন। স্বাভাবিকভাবেই পঞ্চায়েত দফতরে মহিলাদের আনাগোনা বেড়ে গিয়েছে। এমনকি লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের জন্য প্রচুর মহিলারা পঞ্চায়েত দফতরে আসছেন। এই অবস্থায় প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষেরা অনেক সময় শর্টস পরে চলে আসছেন। সেটা দেখে অনেক মহিলারা আপত্তিও তুলেছেন। সে কারণেই আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি”।

পঞ্চায়েত দফতর সূত্রে খবর, বিগত বেশ কিছু মাস ধরে পঞ্চায়েত দফতর চত্বরে দুয়ারে সরকার প্রকল্পের কারণে নানান মানুষের আনাগোনা হচ্ছে। নানান প্রকল্পের জন্য সেখানে উপস্থিত হচ্ছেন গ্রামের মহিলারাও। তাই কেউ হাফপ্যান্ট দফতরে এলে, তা খুবই দৃষ্টিকটু দেখাচ্ছে, এমনটাই ধারণা পঞ্চায়েত দফতরের। এই কারণেই এমন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button