রাজ্য

লাগামছাড়া বিতর্কিত মন্তব্য করার জের, মদন মিত্রের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে তৃণমূল

মদন মিত্রের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে তৃণমূলের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি। বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই কামারহাটির বিধায়কের গলায় নানান বিতর্কিত মন্তব্য উঠে আসছে। দলের মতে, এমন মন্তব্যের জেরে একদিকে যেমন দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে, ঠিক তেমনই আবার অন্যদিকে দলের নির্দিষ্ট রীতিনীতির বিরুদ্ধেও কথা বলা হচ্ছে।

এমন বিতর্কিত মন্তব্য করার কারণে মদন মিত্রকে এর আগে সতর্কও করা হয়েছে। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। নিজের মন্তব্য জারি রেখেছেন তিনি। এই কারণে এবার তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে দল।

বলে রাখি, গতকাল, বৃহস্পতিবারই মদন মিত্র বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায় ছাড়া আর কোনও মুখ নেই। বাকিরা কেউ গোটা, কেউ মোটা, কেউ সোটা”। এমন বিশেষণ তিনি কাদের উদ্দেশ্য করে বললেন, তা নিয়ে দলের অন্দরে বেশ শোরগোল পড়েছে।

তাহলে তাঁর মতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ই কী তৃণমূলের মুখ। এই প্রশ্নের উত্তরে কামারহাটির বিধায়ক বলেন, “আমার তো অভিষেকের মুখটা ভাল লাগে। আমার কেমন ওকে মিষ্টি মিষ্টি বাচ্চা লাগে। আর কার ভাল লাগে আমি কীভাবে বলব? এই দলে মমতাদির পর অভিষেক ছাড়া আর কারও মুখ আমার ভাল লাগে না। কেউ গোটা, কেউ মোটা, কেউ সোটা”।

এরপর তাঁকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন যে তিনি কোনওভাবে নিজের মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সৌগত রায়, সুব্রত বক্সীদের ইঙ্গিত করছেন? মদন মিত্রের কথায়, “আমি কারও নাম বলিনি। আমি বলেছি অভিষেককে বেশ দেখতে সুন্দর। ফুটফুটে বাচ্চা। অভিষেককে দেখলে প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির কথা মনে পড়ে যায়। ওর বক্তৃতা। ওর বক্তৃতার কনটেন্ট”।

এর পাশাপাশি এদিন তৃণমূল বিধায়ক আরও বলেন, “শুভেন্দু অধিকারী, অর্জুন সিংকে নিয়েও কিছু বলব না। কারণ এরপর এদেরই দেখা যাবে তৃণমূল ভবনে। তখন আমি বেমতলব কেস খাব”।

Related Articles

Back to top button