রাজ্য

‘জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জেলাটা শেষ করে দিচ্ছে’, মমতার লাইভে রাজ্যের মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করার পরই নিখোঁজ তৃণমূল কর্মী

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক লাইভ চলাকালীন রাজ্যের বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন বনগাঁর এক তৃণমূল কর্মী। সেই কর্মীর বিরুদ্ধে দলের পক্ষ থেকে অভিযোগও দায়ের করা হয়। আর এরপরই নিখোঁজ হয়ে যান সিন্টু ভট্টাচার্য নামের ওই দলীয় কর্মী। ওই কর্মীর পরিবারের তরফে এমনই অভিযোগ করা হয়েছে।

সম্প্রতি দলের নেতাদের নিয়ে একটি বৈঠক করেনতৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। সেই সময়ই জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেন বনগাঁ পুরসভার ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সিন্টু ভট্টাচার্য।

তিনি ঠিক কী লিখেছিলেন সেখানে?‌ তিনি লেখেন, “বালু মল্লিক (জ্যোতিপ্রিয়) উত্তর ২৪ পরগনা জেলাটা শেষ করে দিচ্ছে। দিদি দয়া করে নজর দিন”। আর এরপরই ওই তৃণমূল কর্মীর বিরুদ্ধে হাবড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ঘনিষ্ঠ কর্মী বলে পরিচিত তন্ময় রায়।

এই অভিযোগের ভিত্তিতে সিন্টু ভট্টাচার্যের বাড়িতে পুলিশ গেলে তাঁর বাবা স্বপন ভট্টাচার্য অনুরোধ করেন যে তাঁর ছেলে একটা ভুল করে ফেলেছে, এইসব যাতে মিটিয়ে নেওয়া হয়।

কিন্তু এরপরই জানা যায় যে সিন্টু ভট্টাচার্য নিখোঁজ। ছেলের কোনও খবর না পেয়ে মাথায় হাত পড়ে পরিবারের। উদ্বিগ্ন হয়ে ছেলে নিখোঁজ হওয়া নিয়ে পাল্টা অভিযোগ দায়ের করে সিন্টুর পরিবার। পুলিশ ওই কর্মীর খোঁজ চালাচ্ছে।

এই ঘটনা নিয়ে তেমন কিছু বলতে রাজি হন নি রাজ্যের বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তিনি শুধু বলেন, “আইন আইনের পথে চলবে”। তবে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বনগাঁ এলাকায় জোর চর্চা শুরু হয়েছে। কেউ কেউ বলছেন, সিন্টু এমন অভিযোগ করে রোষের মুখে পড়েছেন। সেই কারণেই তাঁকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা এই ঘটনায় মুখে কুলুপ এঁটেছেন।

Related Articles

Back to top button