রাজ্য

পয়গম্বর বিতর্কের জেরে ক্রমেই বাড়ছে নিত্যযাত্রীদের দুর্ভোগ, বাধ্য হয়ে একাধিক ট্রেন বাতিল করল রেল, সময়সূচী বদল একাধিক ট্রেনের

হজরত মহম্মদ সম্পর্কে বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মা যে মন্তব্য করেছেন তা নিয়ে বাংলায় নানান জায়গায় অশান্তি চলছেই। গতকাল, শুক্রবার নানান জায়গায় এই নিয়ে বিক্ষোভ, অবরোধ চলে। এর জেরে বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করে রেল কর্তৃপক্ষ। তা আজও বজায় থাকল। এই বিক্ষোভের জেরে আজ, শনিবার দূরপাল্লার প্রায় ৪টি ট্রেন বাতিল করল রেল।

দক্ষিণ-পূর্ব রেল সূত্রে খবর, আজ, শনিবার টাটানগর-হাওড়া ইস্পাত এক্সপ্রেস বাতিল করা হয়েছে। এছাড়াও বাতিল হয়েছে আদ্রা-হাওড়া শিরোমণি এক্সপ্রেস, পুরুলিয়া-হাওড়া এক্সপ্রেস ও ভদ্রক-হাওড়া এক্সপ্রেস।

শুধু তাই-ই নয়, একাধিক ট্রেনের সময়সূচিও বদল করতে বাধ্য হয়েছে রেল। হাওড়া-পুণে দুরন্ত এক্সপ্রেস, হাওড়া-বারবিল জনশতাব্দী এক্সপ্রেস, হাওড়া-তিতলিগড় কান্তাবাঞ্জি ইস্পাত এক্সপ্রেস, হাওড়া-দিঘা তাম্রলিপ্ত এক্সপ্রেস, হাওড়া-সেকেন্দ্রাবাদ ফলকনুমা এক্সপ্রেস নির্ধারিত সময়ের পরে ছাড়বে।

প্রসঙ্গত, বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মা মহানবী হজরত মহম্মদ সম্পর্কে যে মন্তব্য করেছেন, তা নিয়ে গোটা দেশে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। গতকাল, শুক্রবার কলকাতা ও হাওড়ার নানান অংশে বিক্ষোভ দেখান সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষরা। এর জেরে রাস্তায় বেরিয়ে সাধারণ মানুষকে বেশ ভোগান্তির মুখে পড়তে হয়।

অবরোধ রুখতে ১৪৪ ধারা জারি করে পুলিশ কিন্তু লাভ হয়নি। এদিন পার্ক সার্কাসে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় মুসলিমরা। এক প্রবল উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। দীর্ঘক্ষণ ধরে চলে এই অবরোধ। আর এর জেরে মধ্য কলকাতায় দেখা যায় যানজট। এই পরিস্থিতি এড়াতে কার্যত হিমশিম খেতে হয় পুলিশকে।

এদিকে হাওড়ার ধূলাগড়েও হয় পথ অবরোধ। অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে শুরু হয় ইটবৃষ্টি। গত বৃহস্পতিবার ৬ নম্বর জাতীয় সড়কপথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় মুসলিমরা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দেওয়ার পরও অবরোধ ওঠে নি। প্রায় ১১ ঘণ্টা চলে এই অবরোধ।

Related Articles

Back to top button