রাজ্য

‘রাজমিস্ত্রি বলে কী আমাদের মন নেই’, বালির দুই গৃহবধূ রিয়া ও অনন্যাকে বিয়ে করতে চান, আদালত চত্বরে দাঁড়িয়েই বললেন দুই রাজমিস্ত্রি

নিজেদের প্রেমকে ফিরে পেতে চান সেই দুই রাজমিস্ত্রি। শুধুমাত্র ফিরে পাওয়াই নয়, দুই জাকে আইনি পথে বিয়ে করে তাদের সঙ্গে সংসারও করতে চান শেখর ও শুভজিৎ। এমনই ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন তারা

বালির দুই গৃহবধূ রিয়া ও অনন্যা ও এক শিশুকে অপহরণ করার মামলায় ৩০শে ডিসেম্বর জামিন পান ওই দুই রাজমিস্ত্রি। আজ, বৃহস্পতিবার হাওড়া আদালতে এসেছিলেন তারা দুজনেই। আদালত চত্বরে দাঁড়িয়ে তাঁরা বলেন, “রাজমিস্ত্রি বলে কি আমরা মানুষ নই! আমাদের কি মন নেই! আমরাও তো ভালবাসতে পারি”!

শেখর ও শুভজিৎ জানান যে তারা অনন্যা ও রিয়াকে ভালোবাসেন। যদি ওই দুই গৃহবধূ রাজি থাকেন, তাহলে তাদের বিয়ে করবেন তারা। আর তা সম্পূর্ণ আইনিভাবেই।

উল্লেখ্য, গত ১৫ই ডিসেম্বর শ্রীরামপুরে শপিংয়ের নাম করে বেরিয়েছিলেন বালির নিশ্চিন্দার দুই জা। এরপর নিখোঁজ হয়ে যান তারা। পাঁচদিন পর জানা যায় বাড়িতে কাজ করতে আসা দুই রাজমিস্ত্রিরন সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল দুই গৃহবধূর। তাদের সঙ্গেই মুম্বই পালান তারা।

তবে শেষরক্ষা হয়নি। মুম্বই থেকে এ রাজ্যে ফেরার সময় আসানসোল স্টেশন থেকে দুই গৃহবধূ-সহ দুই রাজমিস্ত্রিকে আটক করে পুলিশ। তবে সেই দুই রাজমিস্ত্রিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রিয়া ও অনন্যাকে পুলিশ ছেড়ে দিলেও শ্বশুরবাড়িতে আর জায়গা হয়নি তাদের। নিজেদের বাপেরবাড়ি গিয়ে ওঠেন তারা।

বৃহস্পতিবার রাজমিস্ত্রিদের আইনজীবী শীর্ষ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ওই দুই গৃহবধূ স্বেচ্ছায় চলে গিয়েছিলেন। পুলিশ চূড়ান্ত রিপোর্ট দেওয়ার পরেই রাজমিস্ত্রিদের জামিন দেওয়া হয়। এখন রিয়া এবং অনন্যাকে বিয়ে করতে চাইছেন শেখররা। তবে আইনি প্রক্রিয়া মেনেই ওঁদের সঙ্গে সংসার করতে চাইছেন শেখররা”।

রাজমিস্ত্রিদের আরও এক আইনজীবী তারক বাগানি বলেন, “দু’জনের বিরুদ্ধে অপহরণের মামলা করা হয়েছিল। কিন্তু অনন্যা এবং রিয়া জানিয়েছেন তাঁরা স্বেচ্ছায় গিয়েছেন। পুলিশ চূড়ান্ত রিপোর্ট দেওয়ার পরই শেখর এবং শুভজিৎকে জামিন দেওয়া হয়েছে”।

রাজমিস্ত্রিরা বিয়ের কথা বলে সংসার করার ইচ্ছাপ্রকাশ করলেও বালির ওই দুই গৃহবধূর থেকে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

Related Articles

Back to top button