সব খবর সবার আগে।

মমতার হুঁশিয়ারিতেও কমছে না ভোট পরবর্তী হিংসা! ভাটপাড়ায় হামলা চলল বিজেপি কর্মীর বাড়িতে

রবিবার প্রকাশ হয়েছে বঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল। হতাশাজনক ফল করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এক প্রকার হেরে গেছে বিজেপি।

আর তারপর থেকে শুরু হয়েছে ভোট পরবর্তী হিংসা। ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের রাশ হাতে রেখেছে তৃণমূল। ওই অঞ্চলের অন্যতম মাথা বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের ক্ষমতা ও দক্ষতা ঘিরে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। এসবের মধ্যেই এবার ভাটপাড়ায় বিজেপি কর্মীর বাড়িতে চলল তৃণমূলী হামলা।

আরও পড়ুন- ‘তাঁর দল জিতলেও, তিনি হেরেছেন, মুখ্যমন্ত্রী হতে লজ্জা করে না’, মমতাকে বেলাগাম আক্রমণ বিপ্লবের

আক্রান্ত ওই পরিবারের সদস্যরা জানাচ্ছেন, অতর্কিতে হামলা চালানো হয়েছে। ঘরের জিনিসপত্রও লুঠ করে পালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধেই হামলার অভিযোগ উঠেছে। তবে যথারীতি এই হামলার অভিযোগ মানতে চায়নি তৃণমূল।

নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই বিজেপি কর্মীদের দাবি, ভোটের ফলাফল তৃণমূলের দিকে যেতেই বিজেপির উপর একের পর এক হামলা নেমে আসছে বলে অভিযোগ। বিজেপির দাবি, ওই পরিবারের সদস্যরা বিজেপির নানা কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণেই এই হামলা চালানো হয়েছে।

ওই পরিবারের তরফে অভিযোগ আচমকাই প্রায় শতাধিক দুষ্কৃতী এই হামলা চালায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘরের আসবাবপত্রে ভাঙচুর চালায় তারা। যাওয়ার সময় বাড়ির সামনে ব্যাপক বোমাবাজি করে দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায়। পরিবারের মহিলা সদস্য়দের দাবি. বিজেপি করার অপরাধেই আমাদের উপর অত্যাচার নেমে এসেছে।

প্রসঙ্গত নির্বাচনের ফল বেরোনোর পর থেকেই এই রকম হামলা শুরু হওয়ায় বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেছিলেন ১৮ জন সাংসদ ৭৭ জন বিধায়ক নিয়ে যদি আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে না পারি তাহলে ইস্তফা দেওয়া উচিত। এদিনও ঘটনার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গেই ওই এলাকায় যান বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। তিনি পরিজনদের সঙ্গে কথাবার্তা বলেন। তাঁর দাবি, এই ধরণের ঘটনা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এদিকে ঘটনার পর থেকেই এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। আতঙ্কে অনেকেই দরজা, জানালা বন্ধ করে রেখেছেন। এলাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশের টহলদারি শুরু হয়েছে।

You might also like
Comments
Loading...