সব খবর সবার আগে।

জাতীয় গড়ের থেকে রাজ্যে মৃত্যুহার বেশী, ৭৮টি কোভিড হাসপাতালে কুইক রেসপন্স টিম গঠনের নির্দেশ রাজ্যের

করোনার ওপর অনেকটা নিয়ন্ত্রণ পেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। কিন্তু এখনও মৃত্যুহার জাতীয় গড়ের চেয়ে বেশি রয়েছে। যার চলতে নানা দিক থেকে সমালোচিত হচ্ছেন রাজ্যের শাসক দল। এবার মৃত্যহারের ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে করোনা হাসপাতালগুলিকে কুইক রেসপন্স টিম গঠনের নির্দেশ দিল রাজ্য সরকার।

প্রাথমিক ভাবে দেশের মধ্যে করোনায় মৃত্যুহারের দিক থেকে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান ছিল শীর্ষে। সেটা এখন অনেকটাই কমেছে। কিন্তু এখনও বাংলায় মৃত্যুর হারের (৩.৮ শতাংশ) থেকে জাতীয় গড় মৃত্যর হার (৩.১ শতাংশের) কম। তবে মহারাষ্ট্র (৪.৭%) ও গুজরাতে মৃত্যর হার (৫.৯%) পশ্চিমবাংলার চেয়ে বেশি।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে এদিন জানানো হয় যে, সময় মতো চিকিৎসা দিতে পারলে মৃত্যুহার অনেকটাই হ্রাস পাবে। তাই রাজ্যের ৭৮টি কোভিড হাসপাতালে বিশেষ দল গঠন করা হচ্ছে।

স্বাস্থ্যদফতর সূত্রে জানা গেছে, প্রতিটি কুইক রেসপন্স টিমে একজন করে অ্যানেসথেটিস্ট, মেডিক্যাল অফিসার, হাউস স্টাফ, বিশেষ প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নার্স ও একজন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেনি থাকবেন। ২৪ ঘণ্টাই এই দল সক্রিয় থাকবে। ইতিমধ্যে বেশ কিছু হাসপাতাল এমন দল তৈরি করে নিয়েছে।

যে সব রোগীর শারীরিক অবস্হা খুবই গুরুতর বলে চিহ্নিত করা হবে, তাদের দিনে দুই বার চেকআপ করা হবে। এছাড়াও হাসপাতালের এমার্জেন্সি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রোগীদেরও তারাই চিকিৎসা করবেন।

মুখ্যমন্ত্রী বারংবার জানিয়েছেন, যে প্রথম থেকে হাসপাতালগুলি কোমরবিডিটি পরিস্থিতির ওপর নজর রাখলে, রাজ্যে মৃত্যুহার এত বাড়ত না। উল্লেখ্য, ২৪শে জুন অবধি রাজ্যে করোনা সংক্রামিত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৯১। এর মধ্যে ৪৩৭ ই জন অর্থাৎ প্রায় ৭৩ শতাংশ রোগীই ছিলেন কোমরবিডিটির শিকার। অর্থাৎ তাদের হার্টের অসুখ, কিডনির সমস্যা, ডায়বিটিস ইত্যাদি সমস্যাগুলি করোনার জেরে আরো মারাত্মক আকার ধারণ করেছিল।

You might also like
Leave a Comment