সব খবর সবার আগে।

যতই ভাবুন বুড়ো বয়সে ভীমরতি, আসলে ঠিক এই কারণেই বৈশাখীকে সব দান শোভনের!

আপনি ভাবছেন প্রেমে পড়ে সমস্ত সম্পত্তি বৈশাখীকে দিয়ে দিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়! কিন্তু ওইখানে যে অন্য গেম চলছে তার ধারণা কি আছে?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতকাল অর্থাৎ জামাইষষ্টির দিন হঠাৎই, নিজের স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তি; প্রাণপ্রিয় বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়ের নামে করে দিয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়।

কিন্তু বেঁচে থাকাকালীন অবস্থায় এই রকম দান কেন? নিজেদের প্রেমকে স্বীকৃতি দিতে? বাংলার বাজারে জোর গুঞ্জন প্রেমিক হোক তো শোভনের মতো! সম্পর্ককে মর্যাদা দিতে সোজা সম্পত্তিই কিনা প্রেমিকার নামে লিখে দিলেন তিনি!

আরও পড়ুন- সারারাত ভারী বৃষ্টি দক্ষিনবঙ্গে, জল জমে কলকাতার রাস্তায়, এখনই থামছে না বৃষ্টি, পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতর

কিন্তু এই জায়গাতেই আসল রহস্য খুঁজে পেয়েছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা! আমজনতা যখন শোভন-বৈশাখী’র রসালো প্রেম চর্চায় মজে তখন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে ঘোল খাওয়ানোর ব্যবস্থা করে নিলেন শোভন-বৈশাখী জুটি!

কীভাবে?

প্রসঙ্গত, নিজের সম্পত্তি দান করে দিলে সেই সম্পত্তি গোয়েন্দা সংস্থা আর; ফ্রিজ বা অ্যাটাচ করতে পারবে না। অন্যান্য অনেক তৃণমূল নেতার মতো সারদা মামলায় জড়িত শোভন চট্টোপাধ্যায়‌ও। আর এই মামলাতেই সম্পত্তি ফ্রিজ করার পদ্ধতি শুরু করেছিল ইডি। আর সেখানেই বড় বাজি মারলেন শোভন!

বৈশাখীর নামে সমস্ত সম্পত্তি লিখে দেওয়ার কারণস্বরূপ শোভন নিজমুখে বলেছেন, “সম্পর্ককে মর্যাদা দিতে চেয়েছি। সেই প্রেক্ষিতেই বৈশাখীকে, সব সম্পত্তি দান করেছি। এখন থেকে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়; আমার সম্পত্তির অধিকারী।” কিন্তু এই দানের পিছনে যে বিশাল মাথা চালিয়েছেন উভয়েই তা একপ্রকার স্পষ্ট।

আরও পড়ুন-মীনাক্ষীর ফেসবুক পেজ থেকে একের পর এক বাম বিরোধী পোস্ট! তড়িঘড়ি হচ্ছে ডিলিট

কিছুদিন আগেই নারদ মামলায়, জেল খেটেছেন শোভন। আপাতত জামিনে মুক্ত রয়েছেন।সারদা মামলাতেও ফেঁসেছেন তিনি।এই ঘটনার জন্য একাধিকবার সিবিআই জেরার মুখে পড়েছেন তিনি। সারদা গ্রুপকে দেওয়া বিভিন্ন লাইসেন্স নিয়ে; জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কলকাতা পুরসভার প্রাক্তন মেয়রকে; একাধিকবার তলব করেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। আর তাই নারদে ফাঁসলে সারদা থেকে মুক্তির উপায় খুঁজে নিলেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...