সব খবর সবার আগে।

বিবিসির সমীক্ষায় সর্বকালের সেরা নেতার শিরোপা পেলেন এই ভারতীয় রাজা

সম্প্রতি বিবিসি ওয়ার্ল্ড হিস্ট্রি ম্যাগাজিনের তরফে বিশ্বের সেরা নেতা বাছতে একটি সমীক্ষার আয়োজন করা হয়েছিল। ব্রিটেনেরই একটি সংবাদমাধ্যমের আয়োজিত জনমত সমীক্ষায় ভারতের এক রাজাকে দেওয়া হয় বিশ্বের সর্বকালের সেরা নেতার শিরোপা।কে সেই রাজা?

ভারতে রাজতন্ত্রের চল ছিল বহুদিন ধরে। পৌরাণিক যুগ থেকে বিভিন্ন রাজা ও তার রাজত্বকালের কাহিনী জানা যায় ইতিহাসের পাতা থেকে। এর মধ্যে কিছু রাজা ছিলেন স্বৈরাচারী আবার কিছু ছিলেন প্রজাবৎসল স্নেহপরায়ণ রাজা। এমনই এক ভারতীয় রাজার পরিচয় পাওয়া গিয়েছে যিনি তার ৪০ বছর রাজত্ব কালে একজনকেও মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করেন নি।

উনিশ শতকের ওই বিখ্যাত ভারতীয় শাসকের নাম রণজিৎ সিং, যিনি বিবিসির সমীক্ষায় সর্বকালের সেরা নেতার শিরোপা পেয়েছেন। মহারাজা রণজিৎ সিংয়ের রাজত্বকে ‘স্বর্ণযুগ’ বলা গেলে, কোনও ভুল হবে না। পাঞ্জাবের এই মহারাজাকে ‘শের-ই-পাঞ্জাব’ উপাধিতে ভূষিত করা হয়, তিনি তাঁর ৪০ বছরের রাজত্বকালে কাউকে শাস্তি দেননি। যদিও তাঁর সমসাময়িক শাসকরা তাদের বিরোধীদের কথায় কথায় শাস্তি দিতেন।

মহারাজা রঞ্জিত সিং এর জন্ম ১৩ নভেম্বর, ১৭৮০ সালে পাকিস্তানে। তিনি শিখদের সর্ব শ্রেষ্ঠ রাজা হিসেবে গণ্য হন। শিখরা তাঁকে অসম্ভব শ্রদ্ধা করেন। রঞ্জিত সিং এমনই একজন ব্যক্তি ছিলেন, যিনি পাঞ্জাবকে একটি শক্তিশালী প্রদেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন, তাঁর জীবিত অবস্থায় ব্রিটিশরা কখনো পাঞ্জাবে আধিপত্য বিস্তার করার সাহস দেখাননি।

১৭৯৮ সালে জামান শাহ দুরানি নামে এক বহিশত্রু ভারতের এসে আক্রমণ করেন। সেই সময় পাঞ্জাব দখল করতে গেলে মাত্র ১৮ বছর বয়সী যুবক রঞ্জিত সিং তাকে প্রতিহত করেন এবং বিতাড়িত করে ছাড়েন। এরপর তিনি ২১ বছরেই পাঞ্জাবের রাজা হন।

রণজিৎ সিং তার প্রতিপক্ষের প্রতি সর্বদা উদারতা দেখাতেন। তিনি পরাজিত রাজাকেও তার রাজত্ব ফিরিয়ে দিতেন। একজন যোগ্য পিতা বা রাজার মতো প্রজাদের দেখতেন তিনি। এমনকি তার রাজত্বকালে কাউকে তিনি মৃত্যুদণ্ডেও দণ্ডিত করেন নি। 

কথিত আছে, তার ছোটবেলায় চক্ষু রোগের কারণে তার একটি চোখ নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। এ কারণে তিনি বলতেন, “ঈশ্বর আমাকে একটি চোখ দিয়েছেন, যাতে আমি হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিষ্টান, ধনী-গরীব সকলেই সমান ভাবে দেখতে পারি।”

Leave a Comment